যৌন জীবনের পূর্বে জরুরী ৮ কাজ

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৮:২২ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৮, ২০১৯ | আপডেট: ৮:২২:অপরাহ্ণ, মার্চ ১৮, ২০১৯

যৌন জীবন মনে মনে যেমনটা আশা করেন, ঠিক যেন তেমনটা নয়। কোথাও কী যেন একটা ঘাটতি রয়েই যাচ্ছে। ঠিক যেন মিলছে না সেই সন্তুষ্টি, ঠিক যেন তৈরি হচ্ছে না সেই মধুরতম মুহূর্তগুলো। সমস্যা যদি এই হয়ে থাকে, তাহলে সময় এসেছে ভিন্ন কোণ থেকে ভাবনার। যৌনতা এই শিল্প, একটি চর্চা করার বিষয়। শিল্পের আনন্দ যেমন একটু একটু করে উপভোগের মাধ্যমে, যৌনতাও ঠিক তাই। যৌনতার আনন্দ উপভোগ করতে হাতে থাকা চাই পর্যাপ্ত সময়, জানা চাই সঠিক কৌশল।

  • যৌন জীবনের আস্বাদ পুরোপুরি উপভোগ করতে চাইলে বিছানায় যাবার আগেই সেরে নিন কিছু ‘বিশেষ’ কাজ।

১. নিজেকে স্ট্রেস মুক্ত করুন
আপনি কখনোই যৌনতার আনন্দ উপভোগ করতে পারবেন না যখন মনের মাঝে জমে থাকবে দৈনন্দিন জীবনের শতেক চিন্তা। অফিস, সংসার, জীবন সব মিলিয়ে অস্থির মন কোন আনন্দই উপভোগ করতে পারে না। তাই কিছুক্ষণের জন্য এসব বাদ দিন। আগামীকালের কী কী করণীয় একটি লিস্ট তৈরি করে ফেলুন এবং লিস্ট সরিয়ে রেখে সব ভুলে যান। দেখবেন মন অনেক হালকা লাগছে, কাজের চাপ ভুলে সঙ্গীর দিকে মন দিতে পারছেন।

২. শরীরকে ভালবাসুন
সুন্দর যৌন সম্পর্কের আগে শরীরকে প্রস্তুত করে নেয়াটা জরুরী। দিনযাপনের ক্লান্তি ঝেড়ে ফেলুন, চমৎকার একটি শাওয়ার সেরে নিন। এমন কোন কাজ করুন যার ফলে আপনি আত্মবিশ্বাসী ও সুন্দর অনুভব করতে পারেন। যেমন পছন্দের রাত পোশাক, অন্তর্বাস, হালকা সাজ কিংবা পারফিউম। সঙ্গী ভালোবাসে এমন কিছু করলে আত্মবিশ্বাস বেড়ে যাবে শতগুনে।

৩. রোমান্স তৈরি হোক আগে থেকেই
কেবল বিছানায় গেলাম আর মুড তৈরি হয়ে গেল, যৌনতার ক্ষেত্রে এমনটা হয় না। বরং শরীরের সাথে সাথে মনের খেলাটাও জরুরী। বিশেষ করে নারীর ক্ষেত্রে যৌনতা শুরু হয় মন থেকেই। সারাদিন জুড়েই সঙ্গীকে ইঙ্গিত দিন। রোমান্টিক মেসেজ বা নরম স্পর্শ যথেষ্ট হবে এই কাজে। আগে থেকে মানসিক প্রস্তুতি থাকলে যৌনতা হয়ে ওঠে অনেক বেশি উপভোগ্য।

৪. জরুরী জিনিসগুলো হাতের কাছে থাক
জন্ম নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা, পছন্দের ভাইব্রেটর বা সেক্স টয়, লুব্রিকেন্ট ইত্যাদি হাতের কাছেই গুছিয়ে রাখুন।

৫. পরিবেশ একটি জরুরী ব্যাপার
যৌনতা একটি সুন্দর ব্যাপার। আর একে আরও মধুর করে তুলতে চাই সুন্দর পরিবেশ। স্বল্প আলো, সুন্দর মিউজিক, পছন্দের চকলেট বা পানীয়, সুগন্ধী ইত্যাদি সবকিছুই পরিবেশ তৈরি করতে দারুণ ভূমিকা রাখে।

৬. মনকে জাগিয়ে তুলুন
মনকে জাগিয়ে তুলতে না পারলে শরীর কখনোই জাগবে না। যৌনতা অভ্যাস নয়, বরং আনন্দ। আর এই আনন্দ ষোল আনা উপভোগ করতে নিজেই নিজের মনকে স্টিমুলেশন দিন। যেমন, সঙ্গীর সাথে উপভোগ্য মুহূর্তগুলোর কথা মনে করুন বা ছবি দেখুন। রোমান্টিক মুভি দেখাও এক্ষেত্রে সহায়ক। আপনার মনকে উজ্জীবিত করে এমন যে কোন কিছু বেছে নিন। দুজনে একসাথেও দেখতে পারেন।

৭. সেলফোন ও সোশ্যাল মিডিয়া সরিয়ে রাখুন
অন্তরঙ্গ মুহূর্তে বারবার সেলফোন বেজে উঠলে বা ফেসবুকের নোটিফিকেশন এলে কেমন লাগবে আপনার? মোটেও ভালো নয়, বরং মুডতাই নষ্ট হয়ে যাবে। তাই দুজনেই কিছুক্ষণ সেলফোনের সঙ্গ বাদ দিয়ে পরস্পরকে উপভোগ করুন। সঙ্গী জরুরী, সেলফোন কিংবা সোশ্যাল মিডিয়া নয়!

৮. আস্তে আস্তে শুরু করুন
স্বাভাবিক অবস্থায় নারীদেহের অন্তত ২০ মিনিট সময় লাগে যৌনক্রিয়ার জন্য প্রস্তুত হতে। তাই যৌনতার ক্ষেত্রে তাড়াহুড়া খুব ভুল একটি সিদ্ধান্ত। হাতে সময় নিয়ে রোমান্স করুন, ফোর প্লে চলুক অনেকটা সময়। দুটি শরীর কামনায় অধীর হলে তবেই আসুক যৌন ক্রিয়া।

সুস্থ যৌনতায় কোন জোর-জবরদস্তি নেই। বরং সঠিক ও সুস্থ যৌনতার চর্চা কমিয়ে আনতে পারে ধর্ষণের মতন কুৎসিত অপরাধকেও।

  • প্রিয়