তালতলীতে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ২০

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৯:০৫ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৪, ২০১৯ | আপডেট: ৯:০৫:অপরাহ্ণ, মার্চ ১৪, ২০১৯

জমি নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে বরগুনার তালতলীর কড়ইবাড়িয়া বাজারে দুই পক্ষের সংঘর্ষে ২০ জন আহত হয়েছে। আহতদের পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ ও বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনা ঘটেছে বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) দুপুরে। এ ঘটনায় মালেক ও শাহ আলী নামের দুই জনকে আটক করেছে পুলিশ।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কড়াইবাড়িয়া বাজারে ২ একর ৪ শতাংশ জমি নিয়ে হাবিব ও আবুল বাশার বাদশা তালুকদারের সাথে ও সেলিম মোল্লা, নুরুল ইসলাম ফকির গ্রুপের বিরোধ চলে আসছিল। ওই জমিতে হাবিব ও আবুল বাশার গ্রুপ মাটি কাটতে গেলে সেলিম মোল্লা, নুরুল ইসলাম ফকিররা বাঁধা দেয়। এ নিয়ে শহিদুল তালুকদার বৃহস্পতিবার সকালে তালতলী থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়। তালতলী থানার এএসআই জাকির হোসেন ঘটনাস্থলে এসে বিরোধী জমি পরিদর্শন করেন এবং দু’পক্ষের লোকজনকে তাদের কাগজপত্র নিয়ে থানায় যাওয়ার নির্দেশ দেয়।

  • পুলিশ ঘটনা স্থান ত্যাগ করার পরপরই দু’পক্ষ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় দু’পক্ষের সংঘর্ষে ২০ জন আহত হয়েছে। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়।

গুরুতর আহত সেলিম ফকির (৪০), মানিক ফকির (৫০), মোশাররেফ তালুকদার (৪০), নুর ইসলাম (৪৫) আবুল বাশার বাদশা তালুকদার (৫০) হাবিব তালুকদার (৫০), সেলিম মোল্লা (৪০), সফের ফকির (৬০), জলিল ফকির (৪০), আফজাল ফকির (৪৫), রবিউল ফকির (২৭), সুমন ফকির (২৪), মামুন তালুকদার (২২) ও খুকু মনিসহ (৩০) আহতদের বরগুনা জেনারেল ও পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে মালেক ও শাহ আলী নামের দুই জনেক আটক করেছে পুলিশ।

তালতলী থানার এএসআই জাকির হোসেন বলেন, অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে উভয়পক্ষের শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষায় মীশাংসার কথা বলে জমির মাটি কাটা বন্ধ করে দেই। কিন্তু আমি ঘটনাস্থল ত্যাগ করার পরেই উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন।

তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পুলক চন্দ্র রায় বলেন, এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে মালেক ও শাহ আলীকে আটক করা হয়েছে। এখনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।