সিলেট সিটিতে হোল্ডিং ট্যাক্স পুনর্মূল্যায়ন কার্যক্রম শুরু

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৫:০৭ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৯ | আপডেট: ৫:০৭:অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৯

সিলেট সিটি করপোরেশন এলাকার হোল্ডিং ট্যাক্স পুনর্মূল্যায়ন (জেনারেল রি-অ্যাসেসমেন্ট) কার্যক্রম শুরু করেছেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। সোমবার সকালে নগরীর ১৮নং ওয়ার্ডের কুমারপাড়ায় একটি বাড়ির পুনর্মূল্যায়ন ফরম গ্রহণের মধ্যদিয়ে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

প্রথম দিনে সিটি করপোরেশনের ১, ২, ৪, ১৫, ১৭ ও ১৮ নং ওয়ার্ডে ছয়টি টিমের সমন্বয়ে নতুন এবং পুরাতন বাসা-বাড়ির বিবরণ ও বাণিজ্যিক ভবন, স্থাপনা, জমির পরিমাণসহ বিস্তারিত বিবরণ পাঠানোর জন্য রি-অ্যাসেসমেন্ট ফরম বিতরণ করা হয়। ফরম পাওয়ার পর তা পূরণ করে সাত দিনের মধ্যে নগর ভবনের অ্যাসেসমেন্ট শাখায় জমা দিতে হবে। এ কার্যক্রম পর্যাক্রমে নগরীর ২৭টি ওয়ার্ডে চলবে। ফলে রাজস্ব বাড়বে সিটি করপোরেশনের। পাঁচ বছর অন্তর এ কার্যক্রম নির্ধারণের বিধান থাকলেও দীর্ঘ প্রায় ১৩ বছরেও এ কার্যক্রমের কোনো উদ্যোগ নেয়া হয়নি।

দ্বিতীয় মেয়াদে মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পর প্রথম দিকেই আরিফুল হক এ উদ্যোগ গ্রহণ করেন। তবে প্রথম মেয়াদে এ উদ্যোগ গ্রহণের ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও দীর্ঘ প্রায় তিন বছর কারাবাসের কারণে সেটি বাস্তবায়ন সম্ভব হয়নি বলে জানান মেয়র। তিনি বলেন, রি-অ্যাসেসমেন্ট কাজে সংশ্লিষ্টদের কোনো অনিয়ম-গাফিলতি বরদাশত করা হবে না। এ কাজে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কোনো অনিয়মের অভিযোগ থাকলে সরাসরি তাকে জানানোর অনুরোধ করেন।

মেয়র বলেন, ‘হোল্ডিং ট্যাক্স মাফ করার কোনো বিধান নেই। অতীতে যারা হোল্ডিং ট্যাক্স আদায় না করে ভোটের রাজনীতির স্বার্থে নাগরিকদের শুধু বকেয়া ঋণের বোঝা বাড়িয়েছেন, তারা নাগরিকদের মারাত্মকভাবে ক্ষতি করেছেন।’ তিনি বলেন, ‘এখন সেই ঋণ আদায় করতে নগরবাসীকে যেভাবে পড়তে হচ্ছে বিড়ম্বনায়, ঠিক সেইভাবে আমাকেও পড়তে হচ্ছে বিভ্রান্তিতে।’

সিটি করপোরেশনের সচিব মোহাম্মদ বদরুল হক বলেন, ‘পুরনো এবং নতুন বাসা-বাড়ির ধার্যকৃত হোল্ডিং ট্যাক্সের সমতা ফিরিয়ে আনতে প্রায় ৫৫ হাজার হোল্ডিংধারীর কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহপূর্বক কর ধার্য কার্যক্রম চলবে ২৭টি ওয়ার্ডে।’ এ কাজে সব নাগরিকের সর্বাত্মক সহযোগিতার আহ্বান জানান তিনি।

এসময় সিসিকের কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র-৩ এবিএম জিল্লুর রহমান উজ্জল, প্রধান প্রকৌশলী নুর আজিজুর রহমানসহ সংশ্লিষ্ট শাখার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।