রাজাপুরে স্কুল শিক্ষার্থীকে জোর করে মাদক খাওয়ানোর অভিযোগ

প্রকাশিত: ১:১৩ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯ | আপডেট: ১:১৩:অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯

ঝালকাঠির রাজাপুরে বানানোর উদ্দেশ্যে জোর পূর্বক মাইনুল ইসলাম (১৩) নামের এক স্কুল ছাত্রকে মাদক খাওয়ানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। এলাকার চিহ্নিত মাদক সেবনকারী রেজাউলের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠেছে । এ বিষয়ে রাজাপুর থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। স্কুল শিক্ষর্থী মাইনুল বর্তমানে রাজাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। মাইনুল উপজেলার এমএস আলম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেনির ছাত্র ও পূর্ব বাদুরতলা এলাকার আ. হাই মলি­কের ছেলে।
মাইনুলের বড় ভাই বুলবুল আহম্মেদ জানান, উপজেলার পশ্চিম বাদুরতলা এলাকার রুস্তুম হাওলাদারের ছেলে রেজাউল ইসলাম দীর্ঘদিন মাদকের সাথে সম্পৃক্ত থাকায় ঝালকাঠি এনএস কামিল মাদ্রাসা থেকে তাকে বহিস্কার করা হয়। রেজাউল গত বৃহস্পতিবার বিকেলে বাদুরতলা বাজার থেকে মাইনুলকে ডেকে নিয়ে বাজারের কাছে থাকা বিষখালী নদীর পাসে নিয়ে জোর করে নেশা জাতিয় ঔষধ খাওয়ায়। এর কিছুক্ষন পরেই মাইনুল অজ্ঞান হয়ে পরে। পরে স্থানীয়রা মাইনুলকে এভাবে দেখতে পেয়ে উদ্ধার করে বাড়ি নিয়ে যায়। এক পর্যায়ে মাইনুল বমি করাসহ তার শরীরে অনেক অসুস্থ্যতা দেখা দিলে তাৎক্ষনিক তাকে রাজাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হয়। এ বিষয়ে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ শিব শংকর জানান, ওর পেটে চেতনা নাশক কোন ঔষধ পড়তে পারে তবে তা পরীক্ষা করে দেখতে হবে।
স্থানীয়রা জানান, রেজাউল একজন চিহ্নিত মাদক সেবনকারী এবং সে প্রায়ই এরকমের ছেলেদের মাদক সেবন করায়। স্থানীয় ইউপি সদস্য মজিবুর রহমান মোল­া বলেন, আমি শুনেছি ঘটনাটি সত্য,তবে আমি জিজ্ঞাসা করলে তারা গুমের ট্যাবলেট খাওয়ানোর কথা বলেন।
এ বিষয়ে অভিযুক্ত রেজাউলের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান,‘আমি ওকে কোন মাদক খাওয়াইনি শুধু একটু ইজিআম দিয়েছিলাম। আমি বিষয়টি বুজতে পারিনী যে এতদুর হবে।’
এ বিষয়ে রাজাপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাইনুদ্দিন জানান,‘অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত করে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।’