মাদারীপুরে সরকারি জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে সরকারি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে

নাজমুল হক নাজমুল হক

স্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ৬:২৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০১৯ | আপডেট: ৬:২৯:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০১৯

নাজমুল হক, মাদারীপুর 01772327799

সড়ক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের কোন নির্দেশই কাজে আসছে না মাদারীপুরে। সম্প্রতি তিনি এক সপ্তাহের মধ্যে সড়কের পাশের অবৈধ স্থাপনা ভেঙ্গে ফেলা নির্দেশ দিলেও মাদারীপুর শহরের পানিছত্র এলাকায় সড়ক ও জনপদ বিভাগের (সওজ) এর জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে একই বিভাগের কর্মকর্তার বিরুদ্ধে। মাদারীপুর- শরীয়তপুর আঞ্চলিক সড়কের পানিছত্র এলাকার ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালের পাশে সড়ক ও জনপদ বিভাগের জমি দখল করে স্থাপনা নির্মাণ কাজ চলছে।

 

এই দখলের সাথে খোদ সড়ক ও জনপদ বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী আমির হোসেনের জড়িত থাকার অভিযোগ উঠেছে। সড়কের জমি দখল নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভ থাকলেও এই কর্মকর্তা জড়িত থাকায় দখল ঠেকাতে কোন ধরনের ব্যবস্থা নেয়নি সড়ক বিভাগ। ওই সরকারি জমিটির বাজার মূল্য কোটি টাকা হবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, সড়ক বিভাগের জমি দখল করে পাকা স্থাপনা নির্মাণ কাজ করছে। মাদারীপুর উন্নয়ন সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি মাসুদ পারভেজ বলেন, ‘সরকারী জমি যদি সরকারী কর্মকর্তারাই দখল করে তাহলে তো রক্ষক হয়ে ভক্ষকের ভুমিকা পালন করছে। এই কর্মকর্তার দেখাদেখি শহরের অন্য জমিও তো প্রভাবশালীরা দখল করে নিবে।

 

প্রশাসনের উচিত আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা।’ এ বিষয়ে মাদারীপুর সড়ক বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী আমির হোসেন বলেন, ‘এই জমি আমি দখল করিনি, জমিটি আমার এক আত্মীয় ক্রয় করেছে। এটি সড়ক বিভাগের জমি নয়। সড়ক বিভাগের জমি মুলত রাস্তার উল্টো পাশে মসজিদের মধ্যে। রাস্তার এই পাশে ব্যক্তি মালিকানা জমির উপর দিয়ে রাস্তা করা হয়েছে।’ এ ব্যাপারে সড়ক ও জনপদ বিভাগের (সওজ) মাদারীপুর কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী মো: জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, সড়ক বিভাগের রাস্তা থেকে ১০ মিটারের মধ্যে কেউ কোন ধরনের স্থাপনা নির্মাণ করতে পারবেনা। যদি করে থাকে তাহলে স্থাপনা উচ্ছেদ করার ব্যবস্থা নেয়া হবে।