এক দিনে জোড়া ধাক্কা, মুকুল ঘনিষ্ঠতায় একদা প্রিয় সাংসদকে বহিষ্কার মমতার

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৫:৪১ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৯, ২০১৯ | আপডেট: ৫:৪১:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৯, ২০১৯

সৌমিত্র দলত্যাগ করার পরে পরেই বোলপুরের সাংসদ অনুপম হাজরাকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিল তৃণমূল কংগ্রেস।

বছর খানেক আগেই তাঁকে শো-কজ করেছিল তৃণমূল কংগ্রেস। এ বার বহিষ্কার। দলকে অস্বস্তিতে ফেলে একের পরে এক ফেসবুক পোস্ট করার জেরে সাংসদ অনুপম হাজরাকে ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে শো-কজ করে তৃণমূল কংগ্রেস।

ফেসবুকে মহাত্মা গাঁধীর বিরুদ্ধে বেশ কিছু মন্তব্য করেছিলেন তৃণমূল সাংসদ। সওয়াল করেছিলেন নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর পক্ষে। এর পরেই তাঁকে সতর্ক করে দল। যদিও নিজের বক্তব্যে অনড়ই রয়েছেন অনুপম। দলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় সতর্ক করলেও ফেসবুকে পোস্ট বন্ধ করেননি অনুপম হাজরা। শেষ পর্যন্ত তাঁকে শো-কজ করে চিঠি পাঠান তৃণমূলের সংসদীয় দলের নেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়।

বুধবার তৃণমূলের বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খান দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন। সৌমিত্রর ঘনিষ্ঠ বন্ধু অনুপমকে নিয়ে অনেক দিন ধরেই অস্বস্তি ছিল তৃণমূলের। সম্প্রতি দুই বন্ধুর সঙ্গেই ঘনিষ্ঠতা তৈরি হয়েছিল বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের। এদিন সৌমিত্র দলত্যাগ করার পরে পরেই বোলপুরের সাংসদ অনুপম হাজরাকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিল তৃণমূল কংগ্রেস।

এমনিতেই আগামী লোকসভা নির্বাচনে অনুপমকে প্রার্থী করা হবে না বলে সিদ্ধান্ত নেয় তৃণমূল কংগ্রেস। সেই জায়গায় প্রার্থী হতে পারেন কংগ্রেস থেকে তৃণমূলে আসা অসিত মাল। এ নিয়েও বিতর্কে জড়ান অনুপম। -এবলা