হঠাৎ জাপার বৈঠকে সালমা ইসলাম

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৯:২৬ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২, ২০১৯ | আপডেট: ৯:২৬:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২, ২০১৯

একাদশ সংসদ নির্বাচন শেষে নতুন বছরের দ্বিতীয় দিনে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের যৌথ বৈঠকে উপস্থিত হয়ে চমক সৃষ্টি করেন ঢাকা-১ দোহার নবাবগঞ্জ আসনে বিএনপির সমর্থনপ্রাপ্ত স্বতন্ত্র প্রার্থী ও দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য সালমা ইসলাম। দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য হলেও তিনি এবার ওই আসনে মহাজোট ও দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে নির্বাচনে অংশ নেন।

একপর্যায়ে নির্বাচনে তাকে বিএনপি ঐক্যফ্রন্ট সমর্থন দিলে ধরে নেওয়া হয় তিনি আর জাতীয় পার্টিতে ফিরছেন না। কিন্তু সবাইকে চমকে দিয়ে বুধবার প্রেসিডিয়ামের যৌথসভায় হাজির হন তিনি। তার উপস্থিতি বৈঠকের নেতাদের মাঝে ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি করে। দলের সিদ্ধান্তের তীব্র সমালোচনা করে জোরালো বক্তব্যও রাখেন তিনি।

এসময় তিনি বলেন, গত ১০ বছরে এ পার্টির জন্য আমি কী করি নাই। অনেক শ্রম দিয়েছি, কিন্তু দল আমাকে বঞ্চিত করেছে। আমার পক্ষে অবস্থান নিলে আমি এমপি হতাম। জাপাকে আরো একটি আসন উপহার দিতে পারতাম।

তিনি বলেন, আমি অন্যদলের প্রতীক থেকে যেনো নির্বাচন করি সে অফার ছিলো, আমি যাইনি।

একাদশ সংসদে জাতীয় পার্টির সত্যিকারের বিরোধী দল হওয়া উচিত বলেও মত দেন সালমা ইসলাম। জাপার কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের এর সভাপতিত্বে বৈঠকে নবনির্বাচিত ১৪জন এমপিসহ ৩৬ জন উপস্থিত থাকলেও উপস্থিত ছিলেন না পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদ, সাবেক দুই মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার ও জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু। এছাড়া ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদসহ বেশ কয়েকজন প্রেসিডিয়াম সদস্য ছিলেন না।

বৈঠক শেষে এক প্রেসব্রিফিংয়ে পার্টির মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গা বলেন, পার্টির সংসদীয় দলের সদস্যরাই মহাজোটের সাথে আলাপ আলোচনা করে সংসদে দলের ভূমিকা নির্ধারণ করবেন।

তিনি বলেন, জাতীয় পার্টি এখন দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম দল। দলকে আরো শক্তিশালী করতে বিভিন্ন উদ্যোগ নেয়া হবে বলে।

জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভা পরিচালনা করেন মহাসচিব মোঃ মসিউর রহমান রাঙ্গা। যৌথসভায় উপস্থিত ছিলেন- প্রেসিডিয়াম সদস্য- কাজী ফিরোজ রশীদ এমপি, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপি, গোলাম কিবরিয়া টিপু এমপি, আবুল কাশেম, মুজিবুল হক চুন্নু এমপি, মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী, শেখ মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, সৈয়দ আব্দুল মান্নান, ফখরুল ইমাম এমপি, সালমা ইসলাম, প্রফেসর মাসুদা এম রশীদ চৌধুরী, মাসুদ পারভেজ সোহেল রানা, নূর-ই হাসনা লিলি চৌধূরী, হাবিবুর রহমান, এস.এম. ফয়সল চিশতী, আজম খান, এ টি ইউ তাজ রহমান, আতিকুর রহমান আতিক, হাজী সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন, শফিকুল ইসলাম সেন্টু, ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী, লেঃ জেঃ (অব.) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী এমপি, ভাইস চেয়ারম্যান- শরিফুল ইসলাম জিন্নাহ এমপি, ডা. রুস্তম আলী ফরাজী, কেন্দ্রীয় নেতা- পীর ফজলুর রহমান মিজবাহ এমপি, পনির উদ্দিন আহমেদ এমপি, আহসান আদেলুর রহমান এমপি, রানা মোহাম্মদ সোহেল প্রমুখ।