জমে উঠেছে তোফায়েল-পার্থর নির্বাচনী মাঠ

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৩:৫৬ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৩, ২০১৮ | আপডেট: ৩:৫৬:অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৩, ২০১৮

ইমতিয়াজুর রহমান।।

ভোলা : সরগরম হয়ে উঠেছে ভোলা-১ আসনের নির্বাচনী মাঠ; আওয়ামী লীগ ও বিএনপির দলীয় প্রার্থীদের নাম ঘোষণার পর থেকেই। রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে চায়ের দোকান সর্বত্র এখন সবার মধ্যে নির্বাচন ভাবনা। ইতোমধ্যে মনোনয়ন যাচাই-বাছাই শেষ। এ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসাবে লড়ছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। প্রতিপক্ষে রয়েছেন বিএনপির পক্ষ থেকে বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (বিজেপি) চেয়ারম্যান আন্দালিভ রহমান পার্থ। এ আসনে তোফায়েল আহমেদ ৬ বার ও পার্থ ১ বার নির্বাচিত হন।

১৯৭০ সালে তিনি আওয়ামী লীগে যোগদান করেন। ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক এবং মুজিব বাহিনীর দায়িত্ব প্রাপ্ত ৪ প্রধানের একজন তিনি। ১৯৭২ এ বাংলাদেশে গণ পরিষদ কর্তৃক গ্রহীত সংবিধান প্রণয়ন  প্রক্রিয়ায় তিনি সংক্রিয় অংশগ্রহণ করেন। ১৯৭৩ এ তিনি জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৭৫ এ রাষ্ট্রপতি স্বাশিত সরকার ঘোষণার পর তিনি প্রতিমন্ত্রী পদমর্যাদায় রাষ্ট্রপতির বিশেষ সহকারী নিযুক্ত হন। ১৯৭৫ এ ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু নির্মমভাবে স্বপরিবারে হত্যার পর তোফায়েল আহমেদ দীর্ঘ তিন বছর কারাগারে ছিলেন। ১৯৯১ এবং ১৯৯৬ সালে ভোলা-১ ও ভোলা-২  আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এরপর ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর ভোলা-২ আসন থেকে ও সর্বশেষ ২০১৪ সালের দশম সংসদ নির্বাচনে ভোলা-১ আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়ে বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ সরকারের বাণিজ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন।

২০০১ সালে সাধারণ নির্বাচনে তিনি ভোলা-১ আসনে ৪ দলীয় জোটের প্রার্থীকে নির্বাচনে বিজয়ী করেন। তার পিতার মৃত্যুর পর বিজেপির হাল ধরেন পার্থ। ২০০৮ সালে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পিতার নির্বাচনী আসন ভোলা-১ থেকে ৪ দলীয় জোটের প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করে প্রথমবারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোলা-১ ও ঢাকা-১৭ আসন থেকে বিজেপির হয়ে লড়তে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছে পার্থ। যা যাচাই বাছাইয়ের পর তার প্রার্থিতা বৈধ হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে।