৩ আসনে আওয়ামীলীগে অশনিসংকেত , বিএনপি’র মাঝে সস্তি

নাজমুল হক নাজমুল হক

স্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ৩:৩৮ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৯, ২০১৮ | আপডেট: ১১:০৯:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৯, ২০১৮

নাজমুল হক, মাদারীপুর প্রতিনিধি। 01772327799

আওয়ামীলীগের ভোট ব্যাংক হিসেবে পরিচিত মাদারীপুর-৩ (সদরের আংশিক-কালকিনি-ডাসার) আসনের প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলের প্রতিটি মাঠ-ঘাট ও পাড়া-মহল্লা চষে বেড়ানো এবং ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন বার্তা পৌছে দিয়েছেন জনপ্রিয় নেতা কৃষিবিদ আ.ফ.ম বাহাউদ্দিন নাসিম এমপি।

 

ভোটের আগে হঠাৎ করেই তৃণমূলের মতামত উপেক্ষা করে কৃষিবিদ আ.ফ.ম বাহাউদ্দিন নাসিম ও সাবেক যোগাযোগ মন্ত্রী কালকিনির সন্তান সৈয়দ আবুল হোসেন কে বাদ দিয়ে ড. আব্দুস সোবাহান গোলাপকে মনোণয়ন দেওয়া হয়েছে বলে সর্বত্রই এখন গুঞ্জন শুরু হয়েছে। অন্যদিকে বিএনপি’র নেতাকর্মিদের মাঝে সস্তি ফিরে এসেছে। স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, নতুন করে আওয়ামী লীগের ড. আব্দুস সোবাহান গোলাপ ও বিএনপির তরুণদের প্রিয় নেতা আলহাজ্ব আনিসুর রহমান তালুকদার (খোকন তালুকদার) প্রার্থী হওয়ার সম্ভাবনায় ভোটের হিসাব-নিকাশ পাল্টে যেতে পারে।

 

এতে স্থানীয় আওয়ামী নেতাকর্মীর মধ্যে উদ্বেগ বাড়ছে। সুত্রে আরও জানাযায়, কৃষিবিদ আ.ফ.ম বাহাউদ্দিন নাসিম ও সাবেক যোগাযোগ মন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেন এর মধ্যে মনোণয়ন যুদ্ধ চলছিলো। এ আসনে কে পাচ্ছেন নৌকা প্রতীক। এমন আলোচনা-সমালোচনা এখন সর্বত্র। তবে স্থানীয় আওয়ামীলীগ ও বেশির ভাগ ভোটাররা বলছেন, জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছেন কৃষিবিদ আ.ফ.ম বাহাউদ্দিন নাসিম এমপি। এ আসনে আওয়ামী লীগের দুই হেভিওয়েট প্রার্থী রয়েছেন, গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন বাহাউদ্দিন নাছিম। কিন্তু হঠাৎ করেই বাহাউদ্দিন নাসিম ও সৈয়দ আবুল হোসেন কে বাদ দিয়ে ড. আব্দুস সোবাহান গোলাপকে মনোণয়ন দেওয়া হয়েছে বলে গুঞ্জন শুরু হয়েছে। এর ফলে সাধারন ভোটার, দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকদের মধ্যে দেখা দিয়েছে চরম হতাশা। কালকিনি উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অধ্যাপিকা তাহমিনা সিদ্দিকী জানান, কালকিনির মাটি ও মানুষের জনপ্রিয় নেতা কৃষিবিদ আ.ফ.ম বাহাউদ্দিন নাসিম এমপি বিগত ৫ বছরে প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলের প্রতিটি মাঠ-ঘাট ও পাড়া-মহল্লা চষে বেড়িয়েছেন এবং ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন বার্তা পৌছে দিয়েছেন। তাকে মনোণয়ন না দিলে তৃণমূলে চরম হতাশা দেখা দিবে।

 

তৃণমূলের অনেক আওয়ামী নেতাকর্মী জানান, কৃষিবিদ আ.ফ.ম বাহাউদ্দিন নাসিম এমপি কালকিনিতে ব্যাপক উন্নয়ন ও জনপ্রিয়তা অর্জন করে। কালকিনির প্রতিটি এলাকায় যার উন্নয়নের ছোয়া ও আইন শৃঙ্খলা বজায় রয়েছে। প্রতিটি মানুষের বিপদে আপদে রোদ, বৃষ্টি, কাদা মাখা পথে ছুটে গিয়েছে সকলের দ্বারে দ্বারে। তাই কালকিনির সাধারন জনগন কৃষিবিদ আ.ফ.ম বাহাউদ্দিন নাসিম কে মাটি ও মানুষের নেতা হিসেবে আখ্যায়িত করে। অপর দিকে, ড. আব্দুস সোবাহান গোলাপ একজন জন বিচ্ছিন্ন নেতা। তার সাথে এই আসনের তৃণমূল নেতাকর্মী বা সমর্থকদের কোনো যোগাযোগ বা সম্পর্ক নাই।

 

ফলে এমন একজন ব্যক্তিকে মনোণয়ন দেয়া হলে এই আসনের ভোটের হিসাব-নিকাশ পাল্টে যেতে পারে। মাদারীপুর জেলা যুবলীগের সভাপতি আতাহার সরদার সাংবাদিকদের জানান, বাহাউদ্দিন নাছিম এমপি কালকিনিবাসীর হৃদয়ের মাটি ও মানুষের নেতা। তিনি নিজেই প্রতিনিয়ত দলের নেতাকর্মীদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে দলীয় নেতাকর্মীদের সক্রিয় করে সংগঠনকে সর্বদা চাঙ্গা রাখছেন। আর তার দিক নির্দেশনায় ঝিমিয়ে পড়া নেতাকর্মীদের মধ্যে ফিরে এসেছে প্রাণ চাঞ্চল্যতা। তার নেতৃত্বে ও পরামর্শে কালকিনি উপজেলার প্রায় প্রতিটি ঝিমিয়ে পড়া আওয়ামী সংগঠন হয়েছে সুসংগঠিত। ‘কর্মী বান্ধব নেতা আ.ফ.ম বাহাউদ্দিন নাছিমকে আমাদের অভিবাবক পদে পেয়ে গর্ববোধ করি। তার মতই নেতা বা এমপি আগামী দিনেও মাদারীপুর-৩ আসনে একান্ত প্রয়োজন। কালকিনিবাসীর জন্য নাছিমের বিকল্প আর নেই। কালকিনিতে যদি দলিয়ো মনোনয়ন বাহাউদ্দিন নাছিম না পায় তাহলে এটা আওয়ামীলীগ এর জন্য অশনিসংকেত। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ও বাহাউদ্দিন নাছিমের পক্ষে মনোনয়ন নিয়ে নেতা কর্মীদের স্ট্যাটাস এখন ভাইরাল।