নারী বিশ্বকাপেও ভারতের কাছে পাত্তা পেলো না পাকিস্তান

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১২:৫২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১২, ২০১৮ | আপডেট: ১২:৫২:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১২, ২০১৮

ছেলেদের বিশ্বকাপে কখনোই ভারতকে হারাতে পারেনি পাকিস্তান। সেটা টি-টোয়েন্টি হোক কিংবা ওয়ানডে। ভারত-পাকিস্তান মুখোমুখি হওয়া মানেই সেখানে নিশ্চিত ভারতের জয় এবং পাকিস্তানের পরাজয়।

নারী বিশ্বকাপেও এ নিয়মের পরিবর্তন ঘটাতে পারেনি পাকিস্তানের নারী ক্রিকেটাররা। ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপের ম্যাচে পাকিস্তানের নারী ক্রিকেটাররাও হেরেছে ভারতের নারী ক্রিকেটারদের কাছে। নারী বিশ্বকাপে ভারতের পাকিস্তানের পরাজয় ৭ উইকেটের বড় ব্যবধানে। ১ ওভার হাতে রেখেই ভারতের নারীরা ১৩৭ রানের বাধা অতিক্রম করে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায়।

গায়ানার প্রোভিডেন্স স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে পাকিস্তান ৭ উইকেট হারিয়ে তুলতে পারে মাত্র ১৩৩ রান। জবাব দিতে নেমে ভারতকে করতে হয় ১২৪ রান। কারণ দু’বার ডেঞ্জার জোনে ঢুকে পড়ে ভারতকে ১০ রান পেনাল্টি উপহার দেয় পাক ব্যাটসওম্যানরা। এর ফলে ভারতীয় ইনিংস শুরু আগেই স্কোর বোর্ডে ১০ রান যুক্ত হয়ে যায়। যার জন্য মিতালি রাজদের করতে হয় আর ১২৪ রান। এক ওভার বাকি থাকতেই কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছে যায় ভারতীয় নারীরা।

টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই তিন উইকট তুলে নিয়ে পাকিস্তানকে চাপে ফেলে দিয়েছিল ভারতের মেয়েরা। ৩০ রানেই পড়ে ৩ উইকেট। তবে পাকিস্তান অধিনায়কের দুরন্ত হাফ-সেঞ্চুরিতে লড়াইয়ে ফেরে পাকিস্তান।

শেষ দিকে দ্রুত চার উইকেট তুলে নিয়ে দেড়শোর আগেই পাকিস্তানকে বেধে ফেলে ভারতীয়রা। পাকিস্তান ইনিংসকে খাদের কিনারা থেকে টেনে তোলেন ক্যাপ্টেন বিসমাহ মারুফ এবং নিদা ধর। চতুর্থ উইকেটে দু’জনে ৯৩ রান যোগ করে পাক ইনিংসকে ভদ্রস্থ জায়গায় পৌঁছে দেন।

মারুফ এবং ধর- দু’জনই হাফ-সেঞ্চুরি করেন। ৪৯ বলে ৫৩ রান করেন মারুফ এবং ৩৫ বলে ৫২ রান করেন নিদা ধর। এই দু’জনের ব্যাটে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এদিন তাদের সর্বাধিক রান করে পাকিস্তান নারী ক্রিকেট দল। এর আগে পাকিস্তান নারীদের টি-টোয়েন্টি সর্বোচ্চ রান ছিল ১২২।

জবাব দিতে নেমে পাক বোলিং নিয়ে ছেলেখেলা করেন মিতালি রাজ। ওপেনিংয়ে নেমে হাফ-সেঞ্চুরি করে ভারতকে সহজেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন। ৪৭ বলে সাতটি বাউন্ডারির সাহায্যে ৫৬ রান করেন তিনি। ম্যাচের সেরাও হন মিতালি। এছাড়া ২৬ রান করেন মন্ধানা। ১৬ রানে অপরাজিত থাকেন আগের ম্যাচের নায়ক হারমানপ্রিত কাউর।