বিএনপির নেতৃত্ব হারাচ্ছেন খালেদা জিয়া-তারেক!

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১০:১৭ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ৬, ২০১৮ | আপডেট: ১০:১৭:পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ৬, ২০১৮

বিএনপির পদে থাকতে পারছেন না খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান। দলীয় গঠনতন্ত্র সংশোধনের বিষয়ে আদালতের দেওয়া নির্দেশনার পরিপ্রেক্ষিতে দলীয় পদ হারাচ্ছেন তাঁরা। এ বিষয়ে আদালতের নির্দেশনার বাইরে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) করণীয় কিছু নেই—এমনটি জানিয়ে বিএনপিকে চিঠি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ইসি আজ মঙ্গলবার কিংবা আগামীকাল বুধবারের মধ্যে বিএনপিকে ওই চিঠি দিতে যাচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

সূত্র মতে, এসংক্রান্ত নথি অনুমোদন দেওয়ার কাজ এরই মধ্যে শেষ করেছে ইসি।

এ বিষয়ে ইসিসচিব হেলালুদ্দীন আহমদ গতকাল সোমবার রাতে বলেন, ‘হাইকোর্ট যেভাবে রায় দিয়েছেন তা প্রতিপালন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন। বিএনপির সংশোধিত গঠনতন্ত্র গ্রহণ করা হবে না। এ বিষয়টি দ্রুত রিট পিটিশনকারী, বিএনপি এবং হাইকোর্টকে অবগত করা হবে। ফলে দলটির আগের গঠনতন্ত্রই বহাল থাকবে।’

খালেদা জিয়া বর্তমানে বিএনপির চেয়ারপারসন আর তারেক রহমান ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান। তারেক রহমান আগে ছিলেন দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান।

বিএনপির গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ‘সমাজে দুর্নীতিপরায়ণ বা কুখ্যাত বলে পরিচিত ব্যক্তি’ বিএনপির কোনো পদে থাকার অযোগ্য হিসেবে গণ্য হতেন। কিন্তু বিএনপির গঠনতন্ত্রের সংশ্লিষ্ট ধারা সংশোধন করে গত ২৮ জানুয়ারি ইসিতে দাখিল করা হয়। খালেদা জিয়ার সাজা হওয়ার প্রাক্কালে গঠনতন্ত্রে ওই সংশোধনী আনে বিএনপি।

বিএনপির গঠনতন্ত্র সংশোধন বিষয়ে এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ৩১ অক্টোবর হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ রিট আবেদনটি ৩০ দিনের মধ্যে নিষ্পত্তি করার নির্দেশ দেন। ওই আবেদন নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত বিএনপির সংশোধিত গঠনতন্ত্র গ্রহণ না করারও নির্দেশ দেওয়া হয়। একই সঙ্গে জারি করা হয় রুল। তাতে দুর্নীতির দায়ে দণ্ডিত ব্যক্তি পদে থাকতে পারবেন না, এমন বিধান বাদ দেওয়া কেন বেআইনি হবে না এবং সংবিধান পরিপন্থী ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চাওয়া হয়। স্থানীয় সরকার সচিব, প্রধান নির্বাচন কমিশনার, নির্বাচন কমিশন সচিব, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও মহাসচিবকে চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়।
সূত্রঃ কালের কণ্ঠ