গৌরনদীতে একই পরিবারের ৬ জনকে পিটিয়ে -কুপিয়ে জখম

প্রকাশিত: ১০:৫৮ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১, ২০১৮ | আপডেট: ১০:৫৮:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১, ২০১৮

গাছ কাটাকে কেন্দ্র করে গৌরনদীর নাঠৈ গ্রামে একই পরিবারের ৬ জনকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে প্রতিপক্ষরা । আহতদেরকে শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহতরা হচ্ছে , আহম্মদ সরদার (৮০) , হানিফ সরদার (৫০) , জাকির সরদার (৫০) হালিমা বেগম (২৮) ,তামান্না (২০) ও সাকিব সরদার (১৮)। আহত সুত্রে জানা গেছে, গতকাল দুপুর আড়াইটায় ঐ গ্রামের বাসিন্দা আহম্মেদ সরদার তার নিজের জমির রেইন্ট্রি গাছের ডাল কাটতে যায়। এতে তার পাশ্ববর্তী চাচাত ভাই আলাউদ্দিন নিজের গাছ দাবী করে বাধা প্রধান করে । এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে ক্ষীপ্ত হয়ে আলাউদ্দিন এর নেতৃত্বে সুজন সরদার , কালাম সরদার , মানিক সরদার , রিমা বেগম, ইভা আক্তার, বকুল বেগম, মর্জিনা বেগম, সোহানা ও তামান্না সহ অজ্ঞাত আরো ৪/৫ জনে মিলে আহম্মদ কে হত্যার উদ্দেশ্যে ইট, লাঠি দিয়ে পেটায়। পরে রামদা ও ছোড়া দিয়ে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে এলোপাথারী কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে।

তার ডাক চিৎকার শুনে তার ভাই জাকির হানিফ , হালিমা, তামান্না ও সাকিব ঘটনা স্থলে গেলে তাদেরকেও পিটিয়ে ও কুপিয়ে আহত করে। পরে স্থানীয়রা আহতদের কে উদ্ধর করে তাৎক্ষনিক শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করে। অপর দিকে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে অপর পক্ষ সুজন, কামাল ও মনিরসহ অন্যন্যরা নাটকীয় ভাবে শেবাচিম হাসপপাতালে ভর্তি হয়েছে। এ ব্যপারে আলাউদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি তার নিজের জমির গাছ বলে দাবী করে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।