যানবাহন নেই রাস্তায়, বাড়তি সুবিধায় রিকশাচালকরা

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১০:২৪ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২৯, ২০১৮ | আপডেট: ১০:২৫:পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২৯, ২০১৮

পরিবহন শ্রমিকদের ডাকা ৪৮ ঘণ্টার ধর্মঘটে প্রায় অচল হয়ে পড়েছে রাজধানী ঢাকা। এতে সবচেয়ে বেশি ভোগান্তিতে পড়েছে অফিসগামী ও খেটে খাওয়া মানুষগুলো।

আবার অন্যদিকে রাজধানীতে দেখা গেছে, বেশকিছু প্রাইভেটকার, সিএনজি এবং লেগুনা গুলোকে। এগুলো গন্তব্যে যেতে চাইলে, গাড়িগুলোতে এমনকি চালকদের গায়ে-মুখে পোড়া মবিল লাগিয়ে দেয় শ্রমিকরা।

তাই সপ্তাহের প্রথম কর্মদিবসে এমন কর্মসূচিতে কর্মস্থলে যাওয়া, নিত্যপ্রয়োজনীয় কাজে বের হওয়া লোকজনের একমাত্র ভরসা রিকশা।

কিন্তু দুর্ভোগে পড়া যাত্রীদের কাছ থেকে এই সুযোগে বাড়তি ভাড়া হাঁকাচ্ছেন রিকশাচালকরা। দুর্ভোগের মধ্যে বাড়তি ভাড়ার আবদার শুনে ক্ষোভে ফুঁসলেও প্রয়োজনের তাগিদে রিকশায় করেই গন্তব্যে ছুটছে মানুষ।

মুগদা বিশ্বরোডে কথা হয় একজন মাঝবয়সী লোকের সঙ্গে। তিনি মুগদার যে লোকেশনে থাকেন সেখান থেকে গোলাপবাগে ৪০ টাকা সর্বোচ্চ ভাড়া।

আজ রিকশাচালক তার কাছে ভাড়া চাইলেন ৬০ টাকা। যেতে হলে এই ভাড়া দিতে হবে, অন্যথায় হেঁটে যেতে হবে সাফ কথা রিকশাচালকের ।

তবে ছেড়ে দেয়ার লোক নন তিনি। রিকশাচালকের এমন আচরণে ক্ষুব্ধ হয়ে তিনি জানতে চাইলেন, ২০ টাকা বেশি চাইলে কেন? রিকশাচালকের জবাব, ‘আইজ তো রাস্তায় গাড়ি নাই। তাই একটু বেশি দিবেন না!’ পরে কথা না বাড়িয়ে অন্য রিকশার সঙ্গে দামদর শুরু করলেন এই ভদ্রলোক।

এদিকে সকাল থেকে মুগদা, কমলাপুর, মানিকনগর এসব এলাকা সকাল থেকে রিকশার দখলে। অনেককে দেখা গেছে পায়ে হেঁটে নিজ নিজ গন্তব্যে যেতে।