পেটের চর্বি বা মেদ কমানোর কয়েকটি সহজ অভ্যাস

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৮:৫৯ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ১৩, ২০১৮ | আপডেট: ৮:৫৯:পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ১৩, ২০১৮

দিন যাচ্ছে ত মেদ বেড়ে যাচ্ছে? দেখতে বিশ্রী লাগছে? আপনার পুরনো কাপড় চোপড় আর আঁটছেনা কোমরে? সঠিক খাবার খাওয়ার মাধ্যমে আপনি চাইলেই এসব সমস্যা দূর করতে পারেন। তলপেটে জমা গ্যাস, রাতে দেরি করে খাওয়া, কার্বোনেটেড পানীয় পান করা, বেশি পরিমাণ ক্যালোরি যুক্ত খাবার খাওয়া, কম ঘুমোনো ইত্যাদি কারণে এসব সমস্যা দেখা দেয় । আপনি যদি মেদ কমাতে চান তাহলে সুষম খাবার গ্রহণের প্রতি বেশি মনোযোগী হতে হবে।

কম পরিমাণে ক্যালোরি নিন যা আপনার শরীর সহজে খরচ করতে পারে। পাশাপাশি খাদ্য তালিকায় বেশি করে ফল ও শাক সবজি রাখতে পারেন। পরিমিত পরিমাণে পানি পান করুন। এর মাধ্যমে শরীরের বর্জ্য দূর হয় এবং মেদ কমে যায়। এমন সাতটি ফল নিচে দেওয়া হলো-

১) তরমুজ
তরমুজে প্রচুর পরিমাণে পানি থাকে। এছাড়া আছে এ্যামিনো এ্যাসিড,ভিটামিন এ ও সি। এটা ওজন কমাতে খুব কার্য়করি।ওজন ঝরাতে এটা অন্যতম সেরা উপায়। প্রতিদিন তরমুজ খেতে পারলে ওজন ও মেদ সহজেই দূর হয়।

২) পেঁপে
পেঁপেতে ফ্যাটের পরিমাণ কম। এতে যে এনজাইম থাকে তা হজমে সাহায্য করে এবং ফ্যাট ভাঙতে পারে,যার ফলে ওজন কমে যায়। প্রতিদিন পেঁপে খেলে ১০ দিনেরে মধ্যেই এর ফল পাবেন।

৩) আনারস ও এ্যাভোকাডো
আনারস এমন এক ফল যা পেটের মেদ কমাতে খুবই উপকারী। এ ফলে ক্যালোরির মাত্রা কম থাকে। এই ফল পেটের হজম শক্তি বৃদ্ধিসহ মেদ কমাতে বেশ উপকারী । ৪) এ্যাভোকাডোঃ প্রচুর ফাইবার আছে এ্যাভোকাডোতে। এটি খেলে দ্রুত খিদে পায় না। এতে থাকা মোনো-স্যাটিউরেটেড ফ্যাটি এ্যাসিড পেটে জমে থাকা মেদ কমাতে খুবই কার্যকরী।

৫) কলা ও আপেল
কলায় এমন কিছু এনজাইম আছে যা হজমে সহায়ক এবং ওজন কমাতেও সাহায্য করে। তাই প্রতিদিন কলা খাওয়ার মাধ্যমে মেদ কমাতে পারেন। ৬) আপেলঃ আপেলে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার আছে। আপেল খাওয়ার মাধ্যমে ওজন অনেকাংশ কমে যায় এবং মেদ কমাতেও সাহায্য করে।

৭) আঙুর
আঙুরের রস শরীরের বাড়তি মেদ কমাতে খুবই উপকরী।শরীরের ওজন কমাতে এবং শরীরের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতেও খুবই উপকারী।