ইসলামপুরে শশারিয়াবাড়ী যমুনা বামতীর সংরক্ষণ প্রকল্পে ধ্বসে হুমকির মুখে দেড় শতাধিক পরিবার

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৮:১৫ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১২, ২০১৮ | আপডেট: ৮:১৫:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১২, ২০১৮

ওসমান হারুনী,জামালপুর প্রতিনিধি:

জামালপুরের ৪৫৫কোটি টাকার ব্যায়ে সদ্য নির্মিত যমুনার বামতীর সংরক্ষণ প্রকল্পে আবারো ধ্বস দেখা দিয়েছে। ফলে হুমকির মুখে পড়েছে ইসলামপুরের শশারিয়াবাড়ীর যমুনাপাড়ের দেড়শতাধিক পরিবারের বসতভিটা।
যমুনা ভাঙ্গন রোধে বামতীর সংরক্ষণ প্রকল্পের গতবছর পানি উন্নয়ন বোর্ডের অধীনে দেওয়ানগঞ্জে ফুটানী বাজার থেকে ইসলামপুর হয়ে সরিষাবাড়ি’র পিংনা পর্যন্ত ৪৫৫কোটি টাকার ব্যায়ে এ প্রকল্পটির কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

 

টানা বৃষ্টিপাত ও যমুনার গভীরতার মূল চ্যানেলটি কাছে আসার কারণে এ প্রকল্পের ইসলামপুর উপজেলার পাথর্শী ইউনিয়নের শশারিয়াবাড়ী বেড়পাড়া গ্রামে বাঁধের কিছু অংশে সিসি ব্লক দেবে যমুনার গর্ভে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে এ বাঁধের শশারিয়াবাড়ী বেড়পাড়া অংশের ১৫০ফুট ভেঙ্গে গেছে। ফলে হুমকির মুখে পড়েছে যমুনাপাড়ের দেড়শতাধিক পরিবারের বসতভিটা। এছাড়াও ইতো পূর্বে এ প্রকল্পের উলিয়া,মোরাদাবাদসহ কয়েকটি স্পটে ভাঙ্গন দেখা দেয়। পরে পানি উন্নয়ন বোর্ডের পক্ষ থেকে বালুভর্তি জিও ব্যাগ ফেলে ভাঙ্গন ঠেকানো হয়।

 

এলাকাবাসীর অভিযোগ,বাধেঁর কাজ নি¤œ মানের হওয়ায় বিভিন্নস্পটে ভেঙ্গে যাচ্ছে। এছাড়াও বাধেঁর পাশে জেগে উঠা যমুনার বালুচর থেকে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করার কারণে বাধেঁর ধ্বস নেমেছে।
স্থানীয়রা জানান,ভাঙ্গন রোধে এখনই জরুরীভাবে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহন করা না হলে আমাদের ঘর-বাড়ি,ফসলি জমিসহ আরো অনেক এলাকা যমুনা গর্ভে চলে যাবে।

 

স্থানীয় পাথর্শী ইউপি চেয়ারম্যান ইফতেখার আলম বাবলু জানান,যমুনার একটা মাত্র চ্যানেল অর্থ্যৎ আমাদের এ নদী দিয়ে পানি প্রবাহিত হওয়ায় ১২০-১৭০ ফুট গভীরতা হওয়ার কারণে এ ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। এ বাঁধের ভাঙন রোধে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহন করা না হলে বাঁধটির যমুনা গর্ভে বিলিন হওয়ার আশংকা রয়েছে।

 

এব্যাপারে জামালপুর পানি উন্নয়নের বোর্ডের উপ-সহকারি প্রকৌশলী আব্দুল্লাহ আল মামুন ভাঙ্গন রোধে আশ^াস দিয়ে জানান,যমুনার “মূল চ্যানেলটি দূরে ছিল,এটি বাধেঁর কাছে আসায় কয়েকটি স্পটে এ সমস্যা দেখা দিয়েছে। এ ভাঙ্গন রোধের প্রতিরোধ করার জন্য জিও ব্যাগ ড্রাম্পিং এর প্রস্ততি চলছে”।