আগামী প্রজন্মকে সুশিক্ষিত করতে সার্বিক পরিবেশ উন্নত করতে হবে–আনোয়ার হোসেন মঞ্জু

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১১:০০ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৪, ২০১৮ | আপডেট: ১১:০০:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৪, ২০১৮

শঙ্কর জীৎ সমদ্দার ভান্ডারিয়া।

জাতীয় পার্টি-জেপি’র চেয়ারম্যান ও পানি সম্পদ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন বলেছেন, ভালভাবে শিক্ষা গ্রহণে অসমর্থ হলে নতুন নেতৃত্ব বেরিয়ে আসবে না, স্বাধীনতার সুফল পাওয়া যাবে না। আগামী প্রজন্মকে সুশিক্ষিত করতে হলে তাদেরকে ভালভাবে লেখা-পড়া করাতে হবে। পাশাপাশি অবকাঠামোগত তথা বিদ্যালয়ের সার্বিক শিক্ষা পরিবেশ অনুকূল রাখতে হবে।

 

তিনি গতকাল বৃহস্পতিবার দিনভর পিরোজপুর জেলার ভান্ডারিয়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বিভিন্ন নির্মাণ, পুনর্নির্মাণ ও নবনির্মিত স্থাপনার উদ্বোধনের এক পর্যায়ে নদমূলা ইউনিয়নের নবনির্মিত পশ্চিম চরখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন কাম সাইক্লোন শেল্টার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন। মন্ত্রী আরও বলেন, আমি ৩৪ বছর ধরে আপনাদের কাছে বারবার একই কথা বলে এসেছি যার পরিবর্তন হয়নি। আমি বলেছি আপনারা এক থাকবেন, কাজের প্রশ্নে বেশী রাজনীতি করবেন না। যারা বেশী রাজনীতি করেন তারা কাজ করেন না। স্বাধীন দেশে অবশ্যই রাজনীতি থাকবে, রাজনীতি করতে হবে তবে তা যেন ইতিবাচক হয়। মনে রাখতে হবে দেশে এখনও অনেক কাজ বাকি। তার মধ্যে আমরা কিছু কিছু কাজ করতে সক্ষম হয়েছি। আল্লাহর কাছে অসীম শুকরিয়া এই জন্য যে, আমরা অল্প আয়েশে, অল্প শ্রমে, অল্প কষ্টে এই বিদ্যালয় কাম সাইক্লোন শেল্টার নির্মাণ করতে সক্ষম হয়েছি। এখানে যেমন ছোট ছোট ছেলে-মেয়েরা সুন্দর অবকাঠামোগত সুবিধার মধ্যে লেখা-পড়া করতে সক্ষম হবে তেমনি ঘূর্ণিঝড়-জলোচ্ছ্বাসের সময় নদী তীরবর্তী চরখালীর মানুষ নিরাপদ আশ্রয় গ্রহণ করতে পারবেন। নদমূলা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শফিকুল কবির তালুকদার বাবুল অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের ব্যবস্থাপনায় এ বিদ্যালয় কাম সাইক্লোন শেল্টারটি নির্মাণ করা হয়।

 

বৃহস্পতিবার রাতে পানি সম্পদ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু ভান্ডারিয়া বন্দরে পিরোজপুর জেলা পরিষদের ব্যবস্থাপনায় ‘জেলা পরিষদ সুপার মার্কেট’র নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। এ সময় পিরোজপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন মহারাজ মন্ত্রীকে স্বাগত জানান। এখানে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতিকুল ইসলাম তালুকদার উজ্জল, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মিরাজুল ইসলাম, ভান্ডারিয়ার সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম সরওয়ার জোমাদ্দার, টুঙ্গিপাড়া আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক হাফিজুর রশীদ তারেক, পিরোজপুরের জেলা পরিষদের সহকারি প্রকৌশলী আরিফুল ইসলাম, উপ সহকারি প্রকৌশলী মো. মুনিরুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন। এখানে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।
এরপর মন্ত্রী জনস্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ব্যবস্থাপনায় ভান্ডারিয়া উপজেলার ধাওয়া ইউনিয়ন পরিষদ প্রাঙ্গণে ইউনিয়নের গভীর নলকূল প্রাপ্তদের মাঝে বরাদ্দপত্র বিতরণ করেন। এসময় অন্যান্যের মধ্যে ধাওয়া ইউপি চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান টুলু উপস্থিত ছিলেন।

 

এ সময় পানি সম্পদ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু উপস্থিত জনগণের উদ্দেশ্যে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বলেন, গভীর নলকূল বরাদ্দ ও স্থাপন নিশ্চিত করতে আমি নিজ হাতে এই বরাদ্দপত্র হস্তান্তর করতে এসেছি। আপনারা শান্তিতে থাকবেন। ঝগড়া-বিবাদ, কাইজ্যা-কলহ করবেন না। পাশের উপজেলা ইন্দুরকানির মানুষ কিছুদিন আগেও গোলযোগ, অশান্তির মধ্যে বসবাস করতেন। সেখানে পূর্বের অবস্থার পরিবর্তন হয়েছে। এখন তারা শান্তিতে রয়েছেন বলে নিজেরা বলাবলি করেন।
বিকালে পানি সম্পদ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তন ট্রাষ্ট ফান্ডের অর্থায়নে গৌরীপুর ইউনিয়ন এবং নদমূলা ইউনিয়নে পৃথক দু’টি সড়ক নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। এছাড়া নদমূলা ইউনিয়নে বিজেপি প্রকল্পের আওতায় দু’টি সড়ক নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। এরপর নদমূলা ইউনিয়নের পশ্চিম চরখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কাম সাইক্লোন শেল্টারের উদ্বোধন করেন।

 

দুপুরে মন্ত্রী সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের ব্যবস্থাপনায় চরখালী-তুষখালী-মঠবাড়িয়া-পাথরঘাটা সড়কের হেতালিয়া সেতু এবং মাদার্শী সেতুর নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করেন। এর আগে একই সড়ক হতে মধ্য বোথলার একটি সড়ক নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করেন। বিকালে পানি উন্নয়ন বোর্ডের ব্যবস্থাপনায় সদর ও গৌরীপুর ইউনিয়নে ঘোষের খাল ও মালিহার হাটের পূর্ব পাশে খেজুরতলা খাল পুনর্খনন কাজ, গৌরীপুর ইউনিয়নের আরডি-২৫ সড়কের ব্রিজ হতে খালের দক্ষিণপাড় আরএসডি সড়ক ভায়া সাহেব খালের ব্রিজ পর্যন্ত সড়ক নির্মাণ, পানি উন্নয়ন বোর্ডের ব্যবস্থাপনায় ভান্ডারিয়া উপজেলার ভূবনেশ্বর নদী পুনর্খনন এবং পোনা নদী ও ভূবনেশ্বর নদী ভাঙ্গনরোধে বিভিন্ন স্থাপনা/সম্পদ রক্ষা প্রকল্প কাজের উদ্বোধন করেন।

 

দুপুরে পানি সম্পদ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু ভান্ডারিয়া উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে আয়োজিত ৪র্থ জাতীয় উন্নয়ন মেলা ২০১৮’র বিভিন্ন স্টল ঘুরে দেখেন। এ সময় ভান্ডারিয়ার উপজেলার চেয়ারম্যান আতিকুল ইসলাম তালুকদার উজ্জল, ভাইস চেয়ারম্যান মিরাজুল ইসলাম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আসমা আক্তার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহীন আক্তার সুমী মন্ত্রীকে মেলা প্রাঙ্গণে স্বাগত জানান। ভান্ডারিয়ার সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা জাতীয় পার্টি-জেপি’র আহ্বায়ক মনিরুল হক মনি, আওয়ামী লীগের উপজেলা সভাপতি ফাইজুর রশীদ খসরু, উপজেলা জেপি’র যুগ্ম আহ্বায়ক গোলাম সরওয়ার জোমাদ্দার, গৌরীপুর ইউপি চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান চৌধুরী, ভিটাবাড়িয়ার ইউপি চেয়ারম্যান খান এনামুল কবির পান্না, ইকড়ি ইউপি চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির, জেপি নেতা ইউসুফ আলী আকন প্রমুখ মন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন।