ধরিত্রী সম্মাননা পাচ্ছেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি

প্রকাশিত: ৮:৪৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৮ | আপডেট: ৮:৪৩:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৮

২০১৮ সালের ধরিত্রী বাংলাদেশ জাতীয় সম্মাননা পাচ্ছেন প্রখ্যাত মৃত্তিকা ও পরিবেশ বিজ্ঞানী, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এস এম ইমামুল হক।

প্রকৃতি ও পরিবেশ আন্দোলনের পথিকৃৎ হিসেবে এ ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় এ সম্মাননায় ভূষিত হচ্ছেন তিনি। বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ সম্মাননা দিয়ে আসছে ধরিত্রী বাংলাদেশ।

২৮ সেপ্টেম্বর বিকাল ৪টায় জাতীয় জাদুঘরের কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে তাঁর হাতে এ সম্মাননা তুলে দেওয়া হবে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন জাতীয় অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান।

আরও উপস্থিত থাকবেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, অধ্যাপক ড. অজয় রায়, অধ্যাপক মাহফুজা খানম, অধ্যাপক ড. ডালেম চন্দ্র বর্মণ, সংস্কৃতিজন সৈয়দ হাসান ইমাম, আলী যাকের, গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব নওয়াজীশ আলী খান, আবেদ খান, বঙ্গবন্ধু স্মৃতি যাদুঘরের কিউরেটর এন আই খান প্রমুখ।

Image may contain: 7 people, including Jubair Adnan, Sohanur Rahman, Shakila Islam, Gazi Intisar Fahim Durjoy and Mredul Islam, people smiling, people standing and outdoor
দীর্ঘদিন ধরে পরিবেশ ও প্রকৃতি নিয়ে কাজ করছেন অধ্যাপক ড. এস এম ইমামুল হক। মাটি থেকে পানির মাধ্যমে খাদ্যচক্রে আর্সেনিকের সংক্রমণ এবং প্রকোপ নিয়ে তাঁর গবেষণা দেশ-বিদেশে প্রশংসিত হয়েছে। বিশ্বখ্যাত হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ও এই গবেষণার স্বীকৃতি দিয়েছে। তাঁর ৩১৫টিরও বেশি গবেষণামূলক প্রবন্ধ জাতীয় ও আন্তর্জাতিক জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে।

১৯৭১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মৃত্তিকাবিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন ড. এস এম ইমামুল হক। ১৯৭৩ সালে একই বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক হিসেবে যোগ দেন। ১৯৮০ সালে থাইল্যান্ডের এশিয়ান ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি (এআইটি) থেকে অ্যাগ্রিকালচারাল সয়েল অ্যান্ড ওয়াটার ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে এমএসসি, ফ্রান্সের ন্যান্সি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৮৪ সালে ডক্টর অব ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রি অর্জন করেন এবং একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্জন করেন পোস্ট ডক্টরাল ফেলোশিপ।

অধ্যাপক ড. এস এম ইমামুল হক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া সেন্টার ফর এনভায়রনমেন্টাল রিসার্চের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক।

বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের (বিসিএসআইআর) চেয়ারম্যান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট সদস্য, বিভিন্ন পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট ও গভর্নিং বডির সদস্যসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেছেন।

বাংলাদেশ সরকারের কৃষি, পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন দেশি-বিদেশি সংস্থা ও প্রতিষ্ঠানের পরামর্শক ও উপদেষ্টাও ছিলেন তিনি।

ড. হক ঢাকা ইউনিভার্সিটি জার্নাল অব বায়োলজিক্যাল সায়েন্সেসের বিভাগীয় জার্নালের প্রধান সম্পাদক, বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি জার্নাল (বিজ্ঞান) ও বাংলাদেশ জার্নাল অব সয়েল সায়েন্সের যুগ্ম সম্পাদক, জার্নাল অব সয়েল সায়েন্স সোসাইটি অব বাংলাদেশের সম্পাদকীয় বোর্ডের সদস্যসহ অনেক জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বৈজ্ঞানিক জার্নালের পর্যালোচক তিনি।

তিনি বাংলাদেশ মৃত্তিকাবিজ্ঞান সমিতির সভাপতি এবং বাংলাদেশ বিজ্ঞান উন্নয়ন সমিতির সাবেক সভাপতি।

শিক্ষা ও গবেষণায় অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ অধ্যাপক ড. এস এম ইমামুল হক এর আগে পেয়েছেন বাংলাদেশ একাডেমি অব সায়েন্সেস গোল্ড মেডেল, বাংলাদেশ ইউজিসি অ্যাওয়ার্ড ২০০৭, বঙ্গবন্ধু কৃষি পদক ২০০৮, বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতা পদক ২০০৯, সয়েল সায়েন্টিস্ট অব দ্য ইয়ার ২০১০-সহ বেশ কিছু পুরস্কার।