মঠবাড়িয়ায় বিএনপির নতুন কমিটি ঘোষণায় দুই গ্রুপ মুখোমুখি

প্রকাশিত: ৬:১১ অপরাহ্ণ, জুলাই ৩১, ২০১৮ | আপডেট: ৬:১১:অপরাহ্ণ, জুলাই ৩১, ২০১৮
  • ॥ পাল্টা-পাল্টি সমাবেশ
  • ॥ সংঘর্ষের আশংকা!

মঠবাড়িয়া উপজেলা ও পৌর বিএনপির সদ্য ঘোষিত কমিটি নিয়ে দল এখন দ্বিধা বিভক্ত হয়ে পরেছে। দলীয় পাল্টা-পাল্টি কর্মসূচি পালনকে কেন্দ্র করে দু’গ্রপ এখন মুখোমুখি। যে কোন সময় ঘটতে পারে বড় ধরনের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ। এক গ্রুপের নেতৃত্বে রয়েছে উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও ঘোষিত কমিটির সভাপতি রুহুল আমীন দুলাল এবং অপর গ্রুপে নেতৃত্ব দিচ্ছেন পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি ও নতুন কমিটির সাধারণ সম্পাদক কেএম হুমায়ুন কবীর।

 

সোমবার সন্ধ্যায় ১১ ইউনিয়নের সমর্থকরা নব গঠিত উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব কেএম হুমায়ুন কবীরের সমর্থন জানিয়ে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।
নব-গঠিত পৌর বিএনপির সভাপতি আ. ম. ইউসুফুজ্জামান এর সভাপতিত্বে এসময় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কেএম হুমায়ুন কবীর, সহ-সভাপতি এসএম ফেরদৌস রুম্মান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোসলেহ উদ্দিন বাবুল মৃধা, জাকির মৃধা, পৌর বিএনপির সহ-সভাপতি ফয়েজ আহম্মেদ খোকন,সাবেক জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহবায়ক সোয়েব শামস্ শওকত, উপজেলা যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক আসাদুজ্জামান অপু ও ছাত্রদল নেতা সোহেল রানা প্রমুখ।

 

উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কেএম হুমায়ুন কবীর বলেন, তৃণমূলের মতামত নিয়েই এই কমিটি গঠন করা হয়েছে। রাজনৈতিক অনুকূল পরিবেশ না থাকায় কেন্দ্রের নির্দেশে জেলা কমিটি এ কমিটির অনুমোদন দেন। শেষে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও আশু রোগ মুক্তির দাবীতে দোয়া-মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

অপরদিকে গত শনিবার বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন দুলালের অনুসারী ১১ ইউনিয়নের নেতাকর্মীরা নব-ঘোষিত কমিটি প্রত্যাখান করে সমাবেশ করেন।

 

উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন দুলাল সমাবেশে বলেন, দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া সম্মেলনের মাধ্যমে উপজেলা কমিটি গঠনের নির্দেশ দিয়ে ছিলেন। এ নির্দেশ উপেক্ষা করে দলীয় গঠনতন্ত্র পরিপন্থী সম্মেলন ছাড়া কমিটি তৃনমুলের নেতা-কর্মীও মানে না আমিও এ কমিটি প্রত্যাক্ষান করলাম।