জোয়ারে ভোলায় ফেরী চলাচলে বিঘ্ন

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১১:১৯ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৬, ২০১৮ | আপডেট: ১১:১৯:পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৬, ২০১৮
জোয়ারে ভোলায় ফেরী চলাচলে বিঘ্ন

ভোলা প্রতিনিধি :

জোয়ারের পানিতে ঘাট তলিয়ে যাওয়ায় ভোলা-লক্ষীপুর রুটে ফেরী চলাচলে মারাত্মক বিঘ্ন সৃষ্টি হচ্ছে। এতে ইলিশা ঘাটে যানবাহনের দীর্ঘ জটের সৃষ্টি হয়েছে। রবিবার (১৫ জুলাই) বিকাল ৩টা থেকে সন্ধা ৭ টা পর্যন্ত ফেরী চলাচল বন্ধ থাকায় ইলিশা ঘাটেই আটকে ছিলো কুসুমকলি ও কনকচাপা নামের দুটি ফেরী। এতে উভয় পাড়ে দেড়শতাধিক পরিবহন আটকে ছিলো।

অপেক্ষকৃত নিচু স্থানে ঘাট নির্মানের কারনে পল্টুন, এপ্রোস সড়ক ও জ্যাম সামান্য জোয়ারে ঘাট তলিয়ে যায় বলে অভিযোগ ফেরী কর্তৃপক্ষের। তাদের অভিযোগ, গত দুইদিন ধরে ভোলার ইলিশা ফেরীঘাট জোয়ারে ডুবে যাওয়ার কারনে ফেরী প্রতিদিন ৩ ঘন্টার অধিক ফেরী চলাচল বন্ধ রাখতে হয়। রবিবারও ফেরী চলাচল বন্ধ ছিলো। এতে ঘাটে দীর্ঘজটের সৃষ্টি হয়েছে। যারফলে পরিবহন চালক ও শ্রমিকরা চরম দুর্ভোগে পড়েছেন।

এদিকে ঘাটে পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে পন্যবাহি যানবাহন। ঘাটে ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষা করেও পারাপার হতে পারছেনা পরিবহনগুলো। গত দুইদিন ধরে জোয়ার ভাটার উপর নির্ভর করে ফেরী চলছে। ঘাট কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, রবিবার ৩ ঘন্টার অধিক ফেরী চলাচল বন্ধ থাকায় ভোলা অংশে অর্ধশতাধিক ও লক্ষীপুর অংশে শতাধিক গাড়ী পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে।

জানা গেছে, দেশের দক্ষিনাঞ্চলের ২১ জেলার সাথে ভোলার যোগাযোগের সহজ মাধ্যম ভোলা-লক্ষীপুর ফেরী সার্ভিস। এ রুটে কৃষানী, কনকচাপা ও কুসুমকলি নামের তিনটি ফেরী চলছে। গুরুত্বপূর্ন এ রুটে জোয়ারের কারনে ফেরী চলাচল বিঘ্নের সৃষ্টি হচ্ছে। এছাড়াও দীর্ঘ দিনেও ঘাট মেরামত না করায় জীর্ন দশায় পরিনত হয়েছে ঘাট। ফেরীর ইনচার্জ ইমরান খান বলেন, ঘাটটি উচু না থাকায় জোয়ারে ডুবে যায়, তখন ফেরী চলাচল বন্ধ রাখতে হয়। এতে ফেরী ট্রিপ কমে গেছে, যারফলে লাইনজটের সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

এ ব্যপারে বিআইডব্লিউটিএ সহকারি পরিচালক মোঃ কামরুজ্জামান বলেন, ইলিশা ঘাটের সমস্যা সমাধানে বিষয়টির উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে, খুব দ্রুত ঘাটের সমস্যা নিরসন করা হবে।