নিজের বিয়ে নিজেই ভেঙ্গে দিলো পঞ্চম শ্রেনীর শিক্ষার্থী আয়শা

মুজিবুর রহমান মুজিবুর রহমান

বাউফল (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৫:৫৭ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৫, ২০১৮ | আপডেট: ৭:০২:অপরাহ্ণ, জুলাই ১৫, ২০১৮
পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলায় নিজের বিয়ে নিজেই ভেঙ্গে দিয়েছে আয়শা আক্তার(১২)নামে পঞ্চম শ্রেনী এক শিক্ষার্থী। ওই শিক্ষার্থী গত শনিবার(১৪জুলাই) বাউফল থানায় এসে এসআই আনোয়ার হোসেনের কাছে তাকে জোর পূর্বক বাল্য বিয়ে দেয়া হচ্ছে এমন অভিযোগ করলে বন্ধ হয়ে যায় বিয়ের সব কার্যক্রম।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানায়ায়, বাউফল সরকারি কলেজের চতুর্থশ্রেনির কর্মচারি সূর্য্যমনি গ্রামের শাহজাদা হোসেনের ছেলে মান্নানের সঙ্গে রাজাপুর গ্রামের কামাল হোসেন এর মেয়ে আয়শা আক্তারের বিয়ে ঠিক করে তাতে রাজি হওয়ার জন্য চাপ দিতে থাকে আয়শার বাবা। আয়শা ওই বিয়েতে রাজি না হওয়ায় তাকে মারধর করে তার বাবা। বাবার মারধর সহ্য করতে না পেরে গত শনিবার সকালে আয়শা নিজেই থানায় উপস্থিত হয়ে বাবা-মা জোড় করে তাকে বাল্য বিয়ে দিচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন। আয়শা বাউফল আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেনির ছাত্রী। বাউফল পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ডে একটি ভাড়া বাসায় বাবা-মায়ের সঙ্গে বসবাস করেন ।
বাউফল থানার এসআই আনোয়ার হোসেন বলেন, মৌখিক অভিযোগের ভিত্তিতে আয়শার বাবাকে ডেকে এনেছি। আয়শার আঁঠারো বছর পূর্ন না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেবেনা বলে গন্যমান্য ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে অঙ্গীকার করেছেন আয়শার বাবা কামাল।