ঝুনুর মার্কা ‘হরিণ’

প্রকাশিত: ১:০৬ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৪, ২০১৮ | আপডেট: ৮:০৮:অপরাহ্ণ, জুলাই ১৪, ২০১৮

বরিশাল সিটি করপোরেশন (বিসিসি) নির্বাচনের একমাত্র স্বতন্ত্র প্রার্থী বশীর আহমেদ ঝুনু উচ্চ আদালতের নির্দেশে প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন। একইসঙ্গে তিনি ‘হরিণ’ প্রতীক পেয়েছেন।

Image result for বরিশাল সিটি কর্পোরেশন মেয়র প্রার্থী

এ নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী এখন সাতজন।

শুক্রবার (১৩ জুলাই) সন্ধ্যায়  বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও সিটি নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মুজিবুর রহমান। তিনি বলেন, উচ্চ আদালতের নির্দেশে বশীর আহমেদ ঝুনু তার প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন। নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে জাতীয় পার্টির (জাপা) বিদ্রোহী প্রার্থী ঝুনুর হলফনামাসহ প্রয়োজনীয় সকল কাগজপত্র উত্তোলন করা হয়েছে।

জাপা বরিশাল সদর উপজেলার সভাপতি ও জেলা কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক ঝুনু  বলেন, রিটার্নিং কর্মকর্তা ও নির্বাচন কমিশনের দেওয়া আদেশের বিরুদ্ধে আমি হাইকোর্টে রিট করেছিলাম। এ পরিপ্রেক্ষিতে বুধবার (১১ জুলাই) বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও মোহাম্মদ ইকবাল কবিরের সমন্বয়ে গঠিত দ্বৈত বেঞ্চ বরিশাল বিভাগীয় কমিশনারকে আমার প্রার্থীতা ফিরে পাওয়ার আদেশ বাস্তবায়নের নির্দেশ দেন।

পাশাপাশি এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রধান নির্বাচন কমিশনার, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিব, বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা, বরিশাল জেলা প্রশাসক ও বরিশাল সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষকে নির্দেশনা দেওয়া হয়।

বৃহস্পতিবার (১২ জুলাই) সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার একেএম ফখরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত নোটিস থেকে এ তথ্য জানা যায়।

এর আগে নিয়মানুযায়ী মনোনয়নপত্র দাখিল করার সময় স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে ৩০০ জন ভোটারের স্বাক্ষর সংবলিত তালিকা দেওয়া হয়। সেখান থেকে পাঁচজন ভোটারকে নির্বাচিত করে তা যাচাই-বাছাই কমিটিতে রাখা হয়। পরে রিটার্নিং কর্মকর্তা স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে একজন ভোটারকে না পাওয়ায় এবং ভোটার তালিকায় স্বাক্ষর জালের অভিযোগে মনোনয়নপত্র বাতিল করে দেন। এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ঝুনু বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ে আপিল করলে সেখানেও রিটার্নিং কর্মকর্তার আদেশ বহাল রাখা হয়। পরে তিনি উচ্চ আদালতে রিট করেন।