`যে জনগনের পাশে থাকবে মানুষ তাকেই ভোট দিবে’ : সাদিক

বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচন

প্রকাশিত: ১০:২৮ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ৮, ২০১৮ | আপডেট: ১০:৩১:পূর্বাহ্ণ, জুলাই ৮, ২০১৮

আগামী ৩০ জুলাই বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনের ভোটগ্রহন শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী ও মহানগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ।

শনিবার (০৭ ‍জুলাই) রাত সাড়ে ৯ টার দিকে বরিশাল রিপোর্টার্স ইউনিটিতে সাংবাদিকদের সাথে সৌজন্য সাক্ষাতকালে দলীয় নেতা-কর্মীদের উপস্থিতিতে এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

এসময় তিনি বিএনপির প্রার্থীকে উদ্দেশ্য করে বলেন, অভিজ্ঞ প্রার্থীর সাথে প্রতিদ্বন্দিতা করার সুযোগ আমার জন্য একটি সৌভাগ্যের ব্যাপার। তিনি (সরওয়ার) বরিশালে ৪ বার এমপি ছিলেন, সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ছিলেন, তার মতো একজন প্রার্থীর বিপেক্ষে আমি প্রতিদ্বন্দিতা করছি এটা সৌভাগ্যের ব্যাপার।তিন বলেন, সিটি নির্বাচনের মেয়র প্রার্থী বরিশাল মহানগর বিএনপির সভাপতি মজিবর রহমান সরোয়ার। তাকে আমি কাকু বলে সম্মোধন করি।তার সাথে আমাকে অনেক জায়গায় হয়তো দেখেছেন। সাবেক প্রেসিডেন্ট আব্দুর রহমান বিশ্বাসের লাশের খাটের এক অংশ আমি ধরেছি অন্য অংশ তিনি ধরেছেন।

সাদিক বলেন, আমি কারো বিরুদ্ধেচারন করতে চাইনা, এটাও একটা পরিবর্তন বলে আমি মনে করি।অনেকেই আমার বিরুদ্ধে বলতে পারে কিন্তু আমি কোন প্রার্থীর বিরুদ্ধে বলতে চাইনা। আমাদের রাজনৈতিক মুখপাত্ররা আছেন তারা হয়তো বলতে পারেন।

তিনি বলেন, বিগত বছরগুলো ধরে আমি বরিশালে রাজনৈতিক অঙ্গনে কিছুটা পরিবর্তনের চেষ্টা করেছি।হয়তো কারো ভালো লেগেছে, কারো লাগেনি। মনোনয়ন পাওয়ার পরে বিগত দিনের ধারাবাহিকতা অনুযায়ী বরিশালে কোন শো-ডাউন কিন্তু আমি করিনি।কারণ শো-ডাউনের কোন প্রয়োজন নেই, বিগত দিনে আমি যা করেছি তাতে বরিশালের মানুষ আমাকে চেনে, ভালোবাসে।এখানে তাদের দেখানোর কিছু নাই। আজ জননেত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্য আপনারা শুনেছেন। আমরা কি কারনে রাজনীতি করি তা তিনি বলেছেন। আমরা মানুষের সেবার জন্য রাজনীতি করি। আমিও বারবার বলেছি আমাদের রাজনীতি মানুষের সেবার জন্য, আমাদের চাওয়া-পাওয়ার কিছু নাই। বরিশালের মানুষের জন্য কি করবো তা নিয়ে আমি কোন ইশতিহার দিবো না এটা আগেই বলেছি। বরিশালের মানুষের চিন্তা-চেতনা তাদের চাওয়া-পাওয়াই আমার ইশতিহার।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দক্ষিনাঞ্চলের উন্নয়ন করেছেন, করছেন। বিএনপির ঘাটি বা আওয়ামীলীগের ঘাটি বলে কোন শব্দ বা ঘটনা আছে বলে আমি মনে করিনা।যে কাজ করবে, জনগনের পাশে থাকবে মানুষ তাকে ভোট দিবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু আপনি তাদের সুখে-দুঃখে পাশে থাকবেন না, তাহলে তারা আপনাকে ভোট দিবে না, এটা আমি বিশ্বাস করি।বরিশালে গত ৮ ফেব্রুয়ারি বরিশালে যে জনসভা হয়েছে, আমি শুনিনি বিগত কোন সময়ে ওইমাঠে দল ক্ষমতায় থাকায় এতো মানুষের উপস্থিতিতে আর কোন জনসভা হয়েছে। তাই এটা প্রমান হয়েছে জননেত্রী শেখ হাসিনা দক্ষিনাঞ্চলের উন্নয়ন করেছেন, যা মানুষের কাজে আসছে।

সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য করে সাদিক বলেন, আমি বলবো না আপনারা আমার পক্ষে লেখেন, আমি খারাপ কাজ করলে তা অবশ্যই লিখবেন। বরিশালের মানুষের স্বার্থে বরিশালের মানুষের পক্ষে যেটা ভালো হবে সেটা লিখবেন এই অনুরোধ থাকবে আপনাদের কাছে। আমার বাবা, দাদা যেভাবে মানুষের সেবা করে গেছেন, সেভাবে আমিও মানুষের সেবা করে যেতে চাই। বিগত দিনে আপনারা দেখেছেন আমি যা বলি তা করার চেষ্টা করি, ভবিষ্যতেও তাই হবে।

সৌজন্য সাক্ষাত কালে আরো উপস্থিত ছিলেন বরিশাল মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট গোলাম আব্বাস চৌধুরী দুলাল, সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট আফজালুল করিম, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট  একে এম জাহাঙ্কীর হোসেন, বরিশাল রিপোর্টাস ইউনিটির সভাপতি নজরুল বিশ্বাস, সাধারন সম্পাদক বাপ্পী মজুমদার, সাবেক সভাপতি আনিচুর রহমান স্বপন, সাংবাদিক সুশান্ত ঘোষসহ প্রমুখ।