কর্তৃপক্ষের উদাসীনতায় বরিশালে জন্মনিবন্ধন কার্যক্রমে সময়ক্ষেপন

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৮:৫৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৫, ২০১৭ | আপডেট: ৯:১৫:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৫, ২০১৭
কর্তৃপক্ষের উদাসীনতায় বরিশালে জন্মনিবন্ধন কার্যক্রমে সময়ক্ষেপন

চারটি কম্পিউটারের তিনটি বিকল হয়ে পড়ে আছে। জন্মনিবন্ধনের প্রায় ষোলশত ফরম ঝুলে আছে। সিটিকর্পোরেশনের কাছে আবেদন করে ও সাড়া পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন বরিশাল এ্যানেক্্র ভবনের একাধীক কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা।দুই সপ্তাহ আগে ফরম জমা দিয়ে এখনো জন্মনিবন্ধন হাতে পাইনি ভুক্তভোগীরা।
এরইধারাবাহিকতায় খোজ নিয়ে দেখা গেছে, বরিশাল এ্যানেক্্র ভবনে হঠাৎ করে অভিভাবকদের উপচে পড়া ভীর। প্রতিদিনই তিনশত থেকে পাচশত নতুন করে জন্মনিবন্ধনের আবেদন জমা পড়ছে। সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় সরকার কর্তৃক শিক্ষার্থীদের মাসে একশত টাকা করে উপবৃত্তি প্রদানের ঘোষনা দিলে নগরীর ত্রিশটি ওয়ার্ডের অভিভাকরা তাদের সন্তানের জন্মনিবন্ধনের জন্য ঝুকে পড়ে।
আলাপকালে বরিশাল নগরীর কাশিপুর থেকে জন্মনিবন্ধনের জন্য আসা অভিভাবক আবুল কালাম আজাদ জানান, বাচ্ছার উপবৃত্তির জন্য জন্মনিবন্ধনের ফটোকপি বিদ্যালয়ে জমা দিতে হবে। এ্যানেক্্র ভবনে প্রায় দুই সপ্তাহ হলো আবেদন জমা দিয়েছি। এখনো জন্মনিবন্ধন হাতে পাইনি । আগে প্রতি বছর হিসাবে ১০ টাকা হারে জমা নিতো এখন ৫ বছরের উপরে ২৩০ টাকা করে আবেদনের জন্য জমা নিচ্ছে। অথচ সময়মত নিবন্ধন হাতে পাচ্ছি না। দ্বায়িত্বে থাকা ষ্টাফরা জানিয়েছে ৪টি কম্পিউটারের তিনটি বিকল হয়ে পড়ে আছে। । ফলে দেরী হবে।
আবেদন পত্র জমা নেয়ার দ্বায়িত্বে থাকা ইরানী বেগম জানান,হঠাৎ করেই জন্মনিবন্ধের চাপ পড়েছে। কয়েক দিন আগে ও দিনে চার থেকে পাচশত আবেদন পত্র জমা পড়েছে। প্রায় ১৬ শত আবেদন পত্র ঝুলে আছে। অফিসের ৪ টি কম্পিউটারের তিনটি বিকল হয়ে আছে। ফলে গ্রাহকদের আমরা সিডিউল অনুযায়ী দিতে পারছি না।প্রেয়ার দেয়া হয়েছে।
এ ব্যাপারে এ্যানেক্্র ভবনের পরিচ্ছন্নতা কর্মকর্তা দীপক লাল মৃধার মুঠোফোনে গতকাল দুপুর ১২ টা ৮ মিনিটে একাধীকবার কল করলে ও তিনি কলটি রিসিভ করেনি।
তথ্য সূত্রে জানাগেছে,প্রাথমিক বিদ্যালয় ঝড়ে পড়া রোধ করতে সরকারের মহৎ উদ্যোগ হিসাবে শির্ক্ষাথীদের উপবৃত্তি প্রদান গ্রামগঞ্জে অনেক আগেই চালু রয়েছে। বর্তমানে এই প্রকল্প শহর লেবেলে চলতি বছরের ডিসেম্বর নাগাদ চালু হওয়ার কথা রয়েছে। শিক্ষার্থীদের স্ব-স্ব বিদ্যালয় থেকে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র চাইলে অভিভাবকরা ঝুকে পড়েন জন্মনিব্ধনের জন্য। ঠিক সে সময় এ্যানেক্্র ভবনের ৩টি কম্পিউটার বিকল হওয়ায় জন্মনিবন্ধনের কার্যক্রম বর্তমানে থেমে আছে। ক্ষুদ্ধ অভিভাবকেরা প্রতিনিয়ত এ্যানেক্্র ভবনে এসে হতাশ হয়ে ফিরে যাচ্ছে। প্রথম শ্রেনীতে মাসে ৫০ টাকা আর পঞ্চম শ্রেনী পর্যন্ত একশত টাকা করে উপবৃত্তি প্রদান করা হবে বলে জানা গেছে।
। এক্ষেত্রে শিক্ষাথীর ছবি,মায়ের সাথে সংযুক্ত ছবি সহ জন্মনিবন্ধের ফটোকপি স্ব-স্ব বিদ্যালয় থেকে জমা দেয়ার জন্য বলা হয়েছে।
তবে উপবৃত্তির নীতিমালা অনুযায়ী শর্ত রয়েছে শিক্ষার্থীদের পরীক্ষায় শতকরা ৪০% নাম্বার পেতে হবে। তিন মাসের মোট কার্য দিবসে শিক্ষার্থীকে ৭৫ দিন বিদ্যালয় হাজিরা থাকতে হবে।
বরিশাল সিটিকর্পোরেশনের নিবার্হী কর্মকর্তা ওয়াহিদুজ্জামান বলেন,আমাদের বিষটি চলমান রয়েছে। এ গুলোর দায় দ্বায়িত্ব স্বা¯্য’ কর্মকর্তার। সে অভিযোগ না দেয়া পর্যন্ত আমাদের কি করার আছে। তবে নতুন কিনতে হলে অনেক টাকার প্রয়োজন এবং অনুমতি নিতে হবে। যা সময় সাপেক্ষ্য। আমরা চেষ্টা করছি বিষয়টির সমাধানের জন্য।
বিসিসির প্রধান স্বাস্থ্যকর্মকর্তা ডাঃ মতিউর রহমানের মুঠোফোনে গতকাল যোগাযোগের চেষ্টা করলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান। কথা শুনতে পাচ্ছেন না বলে পরের দিন যোগাযোগ করতে বলেন।