তালার কানাইদিয়াই চলছে মাদকের রমরমা ব্যবসা

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৫:১০ অপরাহ্ণ, জুন ২৫, ২০১৮ | আপডেট: ৫:১০:অপরাহ্ণ, জুন ২৫, ২০১৮
তালার কানাইদিয়াই চলছে মাদকের রমরমা ব্যবসা

তালা অফিস : সাতক্ষীরার তালা উপজেলার সীমান্ত এলাকা কানাইদিয়াই চলছে মাদকের রমরমা ব্যবসা। আইনশৃংখলা বাহিনী বহুবার অভিযান চালালেও থামাতে পারেনি এ ব্যবসা।সারা দেশে মাদকবিরোধী অভিযানে উপজেলার ছোটখাট কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করলেও মাদক চোরাচালানের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তি ও তাদের গডফাদাররা রয়েছে এখনও ধরাছোঁয়ার বাইরে। এক শ্রেণির যুবক ও ক্ষমতাশীন দলের গ্রভাবশালী নেতাদের ছত্রছায়ায় থেকে কিছু নামধারী নেতাকর্মীরা এ ব্যবসার সঙ্গে জড়িত বলে অভিযোগ উঠেছে। তালার কানাইদিয়ার বিভিন্ন স্পটে রয়েছে মাদকের রমরমা ব্যবসা। এসব এলাকায় মাদকসেবী তৎপরতা বেড়ে গেছে। ছেয়ে গেছে মাদকের ছোবল। ফলে তরুণ বয়সের যুবক- যুবতিরা মাদক সেবনসহ মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িয়ে পড়ছে।কানাইদিয়া গ্রাামের চাঁদ আলী মাষ্টারের ছেলে আমিরুল এলাকায় মাদক সম্রাট বলে পরিচিত।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, বিগত কয়েক বছর ধরে এই আমিরুল ও তার আতœীয় স্বজন মিলে উঠতি বয়সি ছেলে মেয়ে, যুব সমাজকে ধ্বংস করেই চলছে। তাদের দাবী আমিরুল স্থানীয় এজেন্ট হিসাবে সাতক্ষীরা, যশোর এবং ভোমরা থেকে গাঁজা, ইয়াবা, হিরোইন, ফেনসিডিল আমদানী করে। সে নিয়মিত খুচরা বিক্রয় সহ পাইকারী বিক্রয় করে থাকে। এসব বিষয় নিয়ে এলাকার প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতাদের সাথে রয়েছে তার সখ্যতা, তাদেরও নিয়মিত মাসোহারার বিনিময়ে চালিয়ে যাচ্ছে মাদকের ব্যবসা। সে বিভিন্ন সময় তাদেরকে ভুড়ি ভোজ করান বলেও অভিযোগ রয়েছে। তার এই বিশাল ব্যবসার সহযোগী হিসাবে সার্বিক ভাবে সাহায্য করে থাকেন অপু শেখ,শুকুর আলী,হারুনসহ আমিরুলের আতœীয় স্বজন।
এলাকার উঠতি বয়সি ছেলেমেয়েরা ধ্বংস হতে চলেছে তারই কারণে। মাদক সম্রাট আমিরুল অনেক বিত্তশালী বৈভবের মালিক বনে গিয়েছেন।তিনি এতটাই প্রভাবশালী যে তার বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুললে তাকে বিভিন্ন ধরনের মিথ্যা মালমা দিয়ে হয়রানি করে থাকে বলে অভিযোগ রয়েছে।
তালা থানার অফিসার ইনচার্জ মেহেদী রাসেল বলেন, আমি এখানে নতুন এসেছি, তবে আমার থানা এলাকায় কেউ মাদকের ব্যবসার সাথে জড়িত থাকলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
সর্বশেষ চি‎িহ্নত মাদক সম্রাট আমিরুল ও তার সহযোগীদের মাদকের ছোবল থেকে যুব সমাজকে রক্ষা করতে আইনশৃংখলা বাহিনীর হস্তাক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসি।