ঈদের দুই ছবিতে বড়দা মিঠু

এ আল মামুন এ আল মামুন

বিনোদন প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২:৫৬ পূর্বাহ্ণ, জুন ১৫, ২০১৮ | আপডেট: ২:৫৬:পূর্বাহ্ণ, জুন ১৫, ২০১৮
ঈদের দুই ছবিতে বড়দা মিঠু

ঈদের দুই ছবিতে বড়দা মিঠু

ঈদে মুক্তি পাচ্ছে শাকিব অভিনীত তিনটি ছবি। পাংকু জামাই, সুপার হিরো ও ‘চিটাগাইঙ্গা পোয়া নোয়াখাইল্যা মাইয়া’। এর মধ্যে ‘সুপার হিরো ও ‘চিটাগাইঙ্গা পোয়া নোয়াখাইল্যা মাইয়া’ দুইটি ছবিতে অভিনয় করেছেন অভিনেতা মাহমুদুল ইসলাম মিঠু ( বড়দা)।
বড়দা মিঠু বলেন, ‘আমার অনেক ভালো লাগছে যে এই ঈদে আমার প্রধান চরিত্রে কাজ করা দুটি বিগ বাজেটের ছবি মুক্তি পাচ্ছে। আর দুই ছবিতে আছেন আমাদের দেশের সুপারষ্টার শাকিব খান।এরই মধ্য দর্শক আমার ছবি দেখে যে উৎসাহ দিয়েছেন তা থেকে আমি উৎসাহিত। আপনারা দোয়া করবেন আমি যেনো আপনাদের পছন্দে ছবি গুলোতে কাজ করতে পারি।

‘সুপার হিরো ও ‘চিটাগাইঙ্গা পোয়া নোয়াখাইল্যা মাইয়া’ ছবিতে নিজের চরিত্র নিয়ে বড়দা বলেন, ‘আমি সুপার হিরোতে শাকিব খানের বস। এই চরিএে দেখা যাবে বিশেষ একটি মিশন নিয়ে বাংলাদেমের একটি গোয়েন্দা বাহিনী অস্ট্রেলিয়ায় আসে, এবং একটা অপারেশন সাকসেস করে। শাকিব খান এই গোয়েন্দা বাহিনীর দলের সদস্য আর আমি এই দলের প্রধান। আর ‘চিটাগাইঙ্গা পোয়া নোয়াখাইল্যা মাইয়া’ ছবিতে আমি ডায়মন্ড চোরাকারবারি। গল্পে দেখা যাবে যে বাংলাদেশে বড় একটা ডায়মন্ড চোরাকারবারি আছে যারা নায়িকা বুবলীকে দিয়ে ডায়মন্ড পাচার করে। বেশ কয়েকজন এরখানে খল চরিত্রে কাজ করেছেন, এর মধ্যে আমি প্রধান খল চরিত্রে অভিনয় করেছি।আর্ট ঘরানার ছবি আজ্ঞাতনামা ও আ্যকশন ঘরানার সুপার হিরো দুই ধরনের ছবি ও নাটকে নিয়মিত কাজ করছেন। কোন ধরনের কাজে নিজেকে সাচ্ছ্যন্দ বোধ করেন। জানতে চাইলে বড়দা বলেন, ‘আসলে যারা মিডিয়াতে কাজ করতে চায় তাদের সবারই চাওয়া বড় পর্দায় কাজ করা। কারন হচ্ছে ছোট পর্দা ইরেজ মিডিয়া। সেখানে একটা কিছু দেখানোর পর সেটা আর থাকেনা। কিন্তু বড় পর্দায় একবার কাজ করলে সেটা সারাজীবন থেকে যায়। আবার ছোট পর্দায় অভিনয়েকরার ক্ষুধাটা মেটেনা। কারন ছোট একটা গল্পে নিজের চরিত্রটা নিয়ে খুব বেশি কাজ করার সুযোগ থাকে না। আবার বড় পর্দায় নিজের চরিত্রটা ফুটিয়ে তোলার একটা সুযোগ থাকে। অভিনয় করার ক্ষুধাটা মিটে।
বড়দা আরো বলেন, ‘আমি চলচ্চিত্রে কাজ শুরু করেছিলাম ১৯৯৮ সালে, একটি ছবি করার পর দ্বিতীয় ছবিতে কাজ করার জন্য আমি ড্রেস পরে শুটিংয়ের জন্য অপেক্ষা করছিলাম। তখন ছবির প্রযোজ এসে আমাকে বের করে দেন। আমি নিরবে চলে যাই। তার ঠিক ৫ বছর পর আবারও মনতাজু রহমান আকবর স্যার আমাকে ডাকেন ২০০৫ এর দিকে। তার পর আবারও কাজ শুরু করি। আল্লাহর আশেষ রহমতে আমি ছোট পর্দা ও বড় পর্দায় কাজ করে যাচ্ছি। তবে আমি বড় পর্দা দিয়ে শুরু করেছি, এখানেই কাজ করতে চাই।
কোনও খল নায়ককে ফলো করনে কিনা জানতে চাইলে বড়দা বলেন, ‘আমি আসলে বাংলাদেশের তিনজন শিল্পীকে খেয়াল করি তারা কিভাবে কাজ করেন। এর মধ্যে প্রথমে আছে রাজীব স্যারের নাম, তার পর হুমায়ুন ফরিদি স্যার, আর একজন কাজ করছেন মিশা সওদাগর। আমিও উনাদের মতো শিল্পী হয়ে খল চরিত্র গুলোতে কাজ করতে চাই।
‘চিটাগাইঙ্গা পোয়া নোয়াখাইল্লা মাইয়া’ প্রযোজনা করেছে শাপলা মিডিয়ার সহযোগী প্রতিষ্ঠান খান প্রডাকশন। ছবিতে অভিনয় করেছেন শাকিব-বুবলী, ওমর সানি, মৌসুমী, সাদেক বাচ্চু, কাজী হায়াৎ, প্রমুখ।