ঈদে ঝরঝরে চুলে

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১:৫৬ পূর্বাহ্ণ, জুন ১৫, ২০১৮ | আপডেট: ১:৫৬:পূর্বাহ্ণ, জুন ১৫, ২০১৮

‘উড়ে যায় বাদলের এই বাতাসে তার ছায়াময় এলো কেশ আকাশে’—রবীন্দ্রনাথের গানে উঠে আসা এলোকেশী ঠিক কতটা সময় নিয়ে চুলের যত্ন নিতেন, সেই বর্ণনা পাওয়া যায়নি। চুলের ধরন যেমনই হোক আর কেশবতী কন্যা যে যুগেরই হোন, চুলের যত্নে চাই পরিচর্যা। ঈদ প্রায় চলে এসেছে। দীর্ঘমেয়াদি যত্নেই সবচেয়ে ভালো ফলাফল পাওয়া যায়, তাতে সন্দেহ নেই। তবে সময়ের অভাবে যদি অল্প কিছুদিনের মধ্যেই ঈদের প্রস্তুতি সারতে হয়, সেটিও অসম্ভব নয়। ফ্যাশনের সঙ্গে তালমিলিয়ে চুল কাটানো বা চুলে কিছু পরিবর্তন আনার কাজগুলোও করে নিতে পারেন এখনই।

রূপবিশেষজ্ঞ আফরোজা পারভীন বলেন, ঈদের আগে এই সময়টাতে ঘরেই নিজের চুলের বাড়তি যত্ন নেওয়া যেতে পারে। চাইলে সেলুনেও চুলের পরিচর্যা করাতে পারেন। চুল কাটানো বা রং করানোর মতো কাজের জন্য একটু সময় হাতে রাখা ভালো।’

বাড়িতেই যত্ন

* চুলে গরম তেল মালিশ করতে পারেন। মাথার ত্বকের নির্দিষ্ট স্থান (প্রেশার পয়েন্ট) বুঝে মালিশ করা সবচেয়ে ভালো। যিনি সঠিক পদ্ধতি জানেন, তাঁর কাছে (বা বিউটি সেলুনে) তেল মালিশ করিয়েও নিতে পারেন। সঠিক পদ্ধতিতে তেল মালিশের ফলে চুল হয়ে ওঠে সজীব।

*  চুল তৈলাক্তপ্রকৃতির হলে তেল মালিশ না করাই ভালো। এ ধরনের চুলে আমলা প্যাক লাগাতে পারেন। আমলা প্যাক টকদইয়ের সঙ্গে মিশিয়ে লাগানো যায়। তবে চুল অতিরিক্ত তৈলাক্ত হলে পানি মিশিয়েই আমলা প্যাক ব্যবহার করতে পারেন। প্যাক লাগানোর ২০ মিনিট পর ভালোভাবে ধুয়ে ফেলুন।

* শুষ্ক চুলের জন্য সমপরিমাণ পাকা কলা ও পাকা পেঁপের সঙ্গে টকদই নিয়ে ব্লেন্ড করে নিন (কলা ও পেঁপের এক ইঞ্চি আকারে কেটে নিতে পারেন)। এরপর মিশ্রণটির সঙ্গে মধু মিশিয়ে চুলে লাগিয়ে নিন। ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

* চুল পড়ার সমস্যা থাকলে আমলা ও টকদইয়ের প্যাক কাজে দেবে। আবার হরিতকি, বহেরা ও আমলকীর সঙ্গে টকদই মিশিয়ে প্যাক তৈরি করেও লাগাতে পারেন।

* তবে যাঁদের চুলে রাসায়নিক সমৃদ্ধ উপাদান ব্যবহার করে কোনও কাজ করা হয়েছে (যেমন চুল রং করা আছে), তাঁদের এগুলোর কোনোটিই করা উচিত নয়। তাঁদের জন্য বিউটি সেলুনের নির্দিষ্ট কিছু প্রক্রিয়া সবচেয়ে কার্যকর।

 ঈদের আগে বিউটি পারলারে

চুল কাটাতে চাইলে ঈদের ৩ থেকে ৫ দিন আগেই কাটিয়ে নিন। চুলে রং করাতে চাইলে ৭ থেকে ১০ দিন সময় হাতে নিয়ে করা ভালো। এখন ঈদের এত সময় আর বাকি নেই। তবু এর মধ্যে কেউ চুল রং করাতে চাইলে একটু ভেবেচিন্তে এগোতে হবে। যেমন রং আপনার চুলে মানায়, তেমনটাই বেছে নিতে হবে। এই রংটা মানাবে কি না বা ওই রংটা একবার লাগিয়ে দেখি—এসব ভাবার সুযোগ নেই ঈদের আগের এই সময়টাতে। রূপবিশেষজ্ঞরা আপনাকে দেখে যেমন রং মানাবে বলে মনে করবেন, এ সময় চুলের জন্য তেমনটা বেছে নেওয়াই বুদ্ধিমানের কাজ। তবে রিবন্ডিং বা অন্য কোনো কাজ কত দিন আগে করাতে হবে, এর কোনও ধরাবাঁধা নিয়ম নেই।

  • প্রথম আলো