জাতীয় নির্বাচনে কোন বিশেষ দলের জন্য আলাদা উদ্যোগ নিতে পারবো না : ইসি

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৬:৪০ অপরাহ্ণ, জুন ৬, ২০১৮ | আপডেট: ৬:৪০:অপরাহ্ণ, জুন ৬, ২০১৮
জাতীয় নির্বাচনে কোন বিশেষ দলের জন্য আলাদা উদ্যোগ নিতে পারবো না  : ইসি

বরিশাল :

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা বলেছেন, আশাকরি জাতীয় নির্বাচনে সেনাবাহিনীর উপস্থিতি রাখবো। তবে এটা আমাদের কমিশনের সাথে আলোচনা করতে হবে। বরিশালসহ কোন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েন থাকবে না। বুধবার বেলা ১১ টায় বরিশাল নগরের সার্কিট হাউজের সভাকক্ষে বরিশাল ও ফরিদপুর অঞ্চলের নির্বাচন কর্মকর্তাদের ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) এর ওপর প্রশিক্ষন কর্মসূচির উদ্বোধন শেষে সাংবাদিক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। এসময় প্রধান নির্বাচন কমিশনার জাতীয় নির্বাচন প্রসঙ্গে বলেন, জাতীয় নির্বাচনে আমরা আলাদা কোন উদ্যোগ নিতে পারবো না কোন বিশেষ দলের জন্য। আমরা আকুল আহবান জানাই এবং সবসময় জানিয়েছি যেন সকল দল নির্বাচনে অংশগ্রহন করে। যাতে নির্বাচন প্রতিযোগীতামুলক হয়। বিএনপি নির্বাচনে আসবে এটা আমরা প্রত্যাশা করি কিন্তু কোন দল নির্বাচনে আসবে কি আসবে না তা নিয়ে কোন উদ্যোগ গ্রহনের সুযোগ আমাদের নেই। তিনি বলেন, প্রযুক্তির ক্ষেত্রে দেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছে তখন আমরা আর পুরানো পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণের বিড়ম্বনা পোহাতে চাইনা। ২০০৮ সালে এই পদ্ধতি নিয়ে নিরীক্ষা করার পর এর সুফল পাওয়ায় আমরা চাচ্ছি পর্যায়ক্রমে এর ব্যবহার প্রসারিত করার। আমরা চাচ্ছি নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু নির্বাচন উপহার দেয়ার। এজন্য ইভিএম পদ্ধতির গুরুত্ব অপরিসীম। এই পদ্ধতির সুফল ও প্রয়োজনীয়তা নিয়ে প্রচারে জন্য সবার প্রতি আহবান যানান তিনি। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ভোট নিয়ে অভিযোগ বন্ধ হবে যদি ইভিএম পুরোপুরি চালু হয় তবে। তখন আর ভোট নিয়ে অভিযোগের সুযোগই থাকবে না। ইভিএম নিয়ে নানান অভিযোগের কারনে আমারা দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে প্রদর্শনের মাধ্যমে এটা যে সঠিকভাবে কাজ করে তা প্রতিষ্ঠা করার জন্য চেষ্টা করছি। আমরা আশাকরি তাদের (অভিযোগকারীদের) বোঝাতে সক্ষম হবো যে ইভিএমের মাধ্যমেই সুষ্ঠ ভোট সম্ভব। তিনি বলেন, খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে তিনটি কেন্দ্রে অনিয়ম হয়েছে সেই তিনটা কেন্দ্র আমরা বন্ধ করেছি। আরো কয়েকটা কেন্দ্রে অনিয়মের ব্যাপারে আমরা অনুসন্ধান করেছি এবং একটি কেন্দ্রে ত্রুটি পেয়েছি সে কেন্দ্রের বিষয়ে আমরা সিদ্ধান্ত নিবো। তবে সেখানে হাতেগোনা কয়েকটি কেন্দ্র ছাড়া সবগুলোতে সঠিকভাবে ভোট হয়েছে। মানুষের ভোটের প্রতিফলন সঠিক হয়েছে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেণ, ২৮৯ টি কেন্দ্রের মধ্যে ৩/৪ টি কেন্দ্র বন্ধ হয়ে যাওয়া আমাদের বাংলাদেশের নির্বাচনের পরিস্থিতিতে এমনটা হতে পারে। কোন কেন্দ্র বন্ধ থাকবে, কোন কেন্দ্রে ভোট গ্রহন হবে না এটা হতে পারে। তবে আমরা চেষ্টা করছি এমনটা যেন না হয়। এরকম যে অন্য সিটি নির্বাচনে ২/১ টি হবে না তার নিশ্চয়তা দেয়ার সুযোগ নেই। যদি এরকম হয় তবে ভোট গ্রহন বন্ধ করে দিবো বা পুনরায় ভোট গ্রহন করবো। এখন আমরা শুধু বরিশালে নয়, অন্যান্য সিটি কর্পোশনের নির্বাচনে আমরা আপ্রান চেষ্টা করবো যাতে ভোটগ্রহন সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করা যায়। খুলনায় যে ভুলত্রুটি ধরা পড়েছে সেগুলো কিভাবে শোধরানো যায় তা নিয়ে আমরা কাজ করছি। আর সকলে সমর্থন, আস্থা আসে তবে জাতীয় নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করা হবে, তবে সবগুলোতে সম্ভব হবে না। বরিশালের জেলা প্রশাসক মোঃ হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রশিক্ষন কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ইভিএম বিষয়ক উপস্থাপনা করেন জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক বি.জে. মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম-এনডিসি, পিএসসি। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেণ, বরিশালের বিভাগীয় কমিশনার মোঃ শহিদুজ্জামান, নির্বাচন প্রশিক্ষন ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক মোস্তফা ফারুক, বরিশালের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ মুজিবুর রহমান, বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার (ভারপ্রাপ্ত) মাহফুজুর রহমান-বিপিএম।