ঝালকাঠির পোনাবালিয়া ইউপি নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগের তদন্ত সম্পন্ন

প্রকাশিত: ২:৫৪ পূর্বাহ্ণ, মে ২৮, ২০১৮ | আপডেট: ২:৫৪:পূর্বাহ্ণ, মে ২৮, ২০১৮
ঝালকাঠির পোনাবালিয়া ইউপি নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগের তদন্ত সম্পন্ন

ঝালকাঠি সদর উপজেলার পোনাবালিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন নিয়ে ভোট ডাকাতি অভিযোগের প্রেেিত রোববার(২৭ মে) সরেজমিনে তদন্ত করেছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা। দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বরিশালের সিনিয়র জেলা নির্বাচন অফিসার মোঃ হেলাল উদ্দিন খান ঝালকাঠি জেলা নির্বাচন অফিসারের কার্যালয় হলরুমে রোববার সকাল ১০ টা থেকে ১ টা পর্যন্ত তদন্তের কাজ সম্পন্ন করেন। এসময় দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রশ্ন আকারের একটি ছকে রিটার্নিং কর্মকর্তা, প্রিজাইডিং কর্মকর্তা ৯জন, নির্বাচন কমিশন থেকে নিয়োগকৃত পর্যবেক ২জন, কেন্দ্র ইন চার্জের দায়িত্বে থাকা ৯জন পুলিশ, চেয়ারম্যান ও সদস্য প্রার্থীদের লিখিত বক্তব্য গ্রহণ করেন।
বিএনপি সমর্থিত ধানের শীষ প্রতিকে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী ওয়ারেচ আলী খান নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ে এক অভিযোগ করেন। অভিযোগে কেন্দ্র দখল করে প্রকাশ্যে নৌকা প্রতিকে সীল মেরে ভোট ডাকাতির বিষয়টি উল্লেখ করেন তিনি।
উল্লেখ্য, গত ১৫ মে ঝালকাঠি সদর উপজেলার পোনাবালিয়া নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত নির্বাচনে অস্বচ্ছ, কেন্দ্র দখল ও ভোট ডাকাতির অভিযোগ এনে নির্বাচনের দিন সকাল ১১ টায় রিটার্নিং অফিসার বরাবরে পুনরায় ভোট গ্রহণের দাবি জানিয়ে আবেদন করেন। দুপুর ১২ টায় সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে চেয়ারম্যান প্রার্থী ওয়ারেচ আলী খান নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন। নির্বাচন কমিশন সচিবালয়েও অভিযোগ দেন তিনি। অভিযোগের প্রেেিত বরিশালের সিনিয়র জেলা নির্বাচন অফিসারকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন নির্বাচন কমিশন সচিবালয়। বরিশালের সিনিয়র জেলা নির্বাচন অফিসার মোঃ হেলাল উদ্দিন খান ঝালকাঠি জেলা নির্বাচন অফিসারের কার্যালয়ে রোববারে তদন্তের জন্য দিন ধার্য্য করেন। এসময় জেলা নির্বাচন অফিসার সোহেল সামাদ, নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা শাহীন শরীফ, সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ইসরাত জাহান সোনালী, চেয়ারম্যান প্রার্থী (আওয়ামীলীগ মনোনীত, নবনির্বাচিত বেসরকারীভাবে বিজয়ী) মোঃ আবুল বাশার খান, বিএনপি সমর্থিত (বর্তমান চেয়ারম্যান) ওয়ারেচ আলী খান, আওয়ামীলীগ বিদ্রোহী আরিফুর রহমান জামাল, বিএনপি বিদ্রোহী আঃ ওয়াহেদ জোমাদ্দার, ইউপি সদস্য এবং ওই ইউনিয়নের বিশিষ্ট ব্যক্তিগণ স্ব্যা প্রদান করেন। নির্বাচনের কর্মকর্তা ও প্রার্থীদের লিখিত বক্তব্য এবং ইউনিয়নের বিশিষ্ট ব্যক্তিদের মৌখিক বক্তব্য গ্রহণ করেন। তদন্ত কর্মকর্তা বরিশালের সিনিয়র জেলা নির্বাচন অফিসার মোঃ হেলাল উদ্দিন খান জানান, একটি অভিযোগের প্রেেিত নির্বাচন কমিশন সচিবালয় থেকে আমার উপর পোনাবালিয়া ইউপি নির্বাচনের সার্বিক বিষয় নিয়ে তদন্তের দায়িত্ব আসে। সেই অনুযায়ী আমি আমার দায়িত্ব পালন করেছি। নির্বাচনে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও প্রার্থীদের লিখিত বক্তব্য নিয়েছি এবং স্থানীয়দের মৌখিক বক্তব্য শুনেছি। দ্রুততম সময়ের মধ্যে প্রতিবেদন পাঠানো হবে।