বাবুগঞ্জে নাড়ী লোভী শিক্ষক শাহাদাৎ আবারো কিশোরী নিয়ে উধাও

আরিফ হোসেন আরিফ হোসেন

বাবুগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২:৫৮ পূর্বাহ্ণ, মে ২৭, ২০১৮ | আপডেট: ২:৫৮:পূর্বাহ্ণ, মে ২৭, ২০১৮
বাবুগঞ্জে নাড়ী লোভী শিক্ষক শাহাদাৎ আবারো কিশোরী নিয়ে উধাও

বাবুগঞ্জে আলোচিত প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শাহাদাৎ একের পর এক নাড়ী কেলেঙ্কারিতে জরিয়ে পুরো শিক্ষক জাতীর মাথা নিচু করে দিয়েছে। ফুসলিয়ে বিয়ে,বিয়ের প্রলভনে নাড়ীর সতিত্ব হরন, এলাকায় কিশোরিদের কু-প্রস্তাব দিয়ে উক্তাক্ত করা এই লম্পট শিক্ষকের নেশায় পরিনত হয়েছে বলে দাবি করেছে স্থানীয়রা। শাহাদাৎ হোসেন পিন্টু বাবুগঞ্জের ২৬ নং বাহেরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করছেন। উপজেলার দেহেরগতি ইউনিয়নের বাহেরচর ঘোষকাঠি গ্রামের সালামের পূত্র এই লম্পট ।

গত বৃহস্পতিবার লম্পট শাহাদাৎ নতুন করে একই এলাকার সৌদি প্রবাসি বাচ্চু মৃধার কিশোরি মেয়ে সুমাইয়া আক্তার (১৭) কে ফুসলিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়। গত শক্রবার এ ঘটনায় সুমাইয়ার “মা” বাবুগঞ্জ থাানায় শাহাদাৎ সহ অজ্ঞাত ২/৩ জনকে আসামী করেন একটি অপহরন মামলা দায়ের করেন । মামলা নং-১০ ।

মামলা সূত্রে জানা যায়,শাহাদাৎ ঘটনার দিন সুমাইয়াকে ফুসলিয়ে মোটরসাইকেল যোগে পালিয়ে যায়।
বিগতদিনে দুইটি বিয়ে করে হুরুস্তুল কান্ডের পর ডিভোর্স নিতে বাধ্য করে সাবেক স্ত্রীদের । ২য় বউ একই এলাকার শনিয়া আদালতে মামলা করলে মাস খানেক জেল হাজত বাস করে লম্পট শাহাদাৎ । এসব ন্যাককার ঘটনার পর নতুন করে কিশোরি নিয়ে পালানোর ঘটনায় উপজেলার শিক্ষক সমাজ । বিদ্যালয়ের সভাপতি খলিলুর রহমান বলেন, শিক্ষক শাহাদাৎ এর কারনে প্রতিষ্ঠানের ও শিক্ষক সমাজের মান হানি হচ্ছে । উপজেলা শিক্ষা অফিসারের সাথে আলাপ করে কঠোর পদক্ষেপ নিবে ম্যানেজিং কমিটি । মামলার তদন্ত অফিসার এসআই তাজেল বলেন, আসামী ধরতে কাজ করছে পুলিশ ।