মুলাদীতে প্রস্তাবিত ইকোপার্কের সম্পত্তিতে ভুমি দস্যুদের ললুপ দৃষ্টি

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১২:৩৬ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১৩, ২০১৭ | আপডেট: ১২:৩৬:পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১৩, ২০১৭
মুলাদীতে প্রস্তাবিত ইকোপার্কের সম্পত্তিতে ভুমি দস্যুদের ললুপ দৃষ্টি

বাস্তবায়নে ভূমি ব্যবস্থাপনা অন্তরায়
মুলাদীতে প্রস্তাবিত ইকোপার্কের সম্পত্তিতে ভুমি দস্যুদের ললুপ দৃষ্টি

মোঃ অভি ॥ মুলাদী (বরিশাল) সংবাদদাতা ॥ বরিশালের মুলাদীতে নয়া ভাঙ্গিনী নদীর পূর্বপাড়ে হিজলা মুলাদী সংযোগ সেতুর পাদদেশে নয়নাভিরাম সবুজের মাঝে প্রস্তাবিত ইকোপার্কের কার্যক্রম আবারো মামলা দিয়ে আটকে দিয়েছে ভূমি দস্যুরা। হিজলা, মুলাদী, কাজিরহাট থানার লাখো মানুষের কর্মব্যস্ততার মাঝে চিত্ত-বিনোদনের ও মানসিক ফুসরতে সময়কাটানোর স্বপ্নের ইকোপার্ক বাস্তবায়ন প্রতিনিয়তই স্বার্থান্বেসি মহলের দাপটে ধুসর হয়ে আসছে। গত ৭ই নভেম্বর প্রস্তাবিত ইকোপার্কের সরেজমিন পরিদর্শনে এসে বরিশাল জেলা প্রসাসক হাবিবুর রহমান প্রাথমিক পর্যায়ে মুলাদী উপজেলা চেয়ারম্যানকে বালু ভরাটের নির্দেশের পাশাপাশি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে ট্রেসম্যাপ করে চাহিদাপত্র পাঠানোর নির্দেশ দেন। জেলা প্রসাসকের সরেজমিন পরিদর্শনের পরেই স্বার্থান্বেসি মহল গত ৮ই নভেম্বর আদালতে মামলা দায়ের করে কার্যক্রম আটকে দিয়েছে বলে জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ জাকির হোসেন। গত ২৯ শে মার্চ বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রি রাশেদ খান মেনন মুলাদীতে সুধিজন ও সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভায় এই অঞ্চলের মানুষের চিত্ত বিনোদনের জন্য দ্রুত ইকোপার্ক স্থাপনের প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করে স্থানীয় সাংসদ বন ও পরিবেশ মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য এ্যাডভোকেট শেখ মোঃ টিপু সুলতান কে বাস্তবায়নের ব্যবস্থা গ্রহনের দায়িত্ব দিলে অদৃশ্য কারনে ভাটাপরে ইকোপার্ক স্থাপনের কার্যক্রম। মুলাদী ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার মোঃ জুয়েল জানান নয়া ভাঙ্গিনী পূর্বপাড়ে জেগে ওঠা চরডিক্রি মৌজায় প্রায় ১২ একর সম্পত্তি খাস হিসেবে নথিভুক্ত রয়েছে, তবে ইউনিয়ন তওসিল অফিসের সাথে অসংগতি থাকায় নির্দিষ্ট পরিমান বলা যাচ্ছে না। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা নয়া ভাঙ্গিনী নদীর বুকে জেগে ওঠা চরের খাস সম্পত্তি নামে বেনামে বন্দোবস্তসহ বিভিন্ন ডিক্রি ও উচ্চ আদালতের কাগজপত্র দেখিয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির মাধ্যমে ভিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে একটি মহল। তবে সম্ভাবনাময় বরিশাল জেলা উত্তরের হিজলা, মুলাদী, কাজিরহাট অঞ্চলের মানুষের প্রানের দাবি বিনোদনকেন্দ্র প্রস্তাবিত ইকোপার্কের জায়গাটি মুষ্টি কয়েক ভূমিদস্যু, স্বার্থান্বেসি মহলের হাত থেকে উদ্ধার করে পার্ক নির্মিত হবে এটাই প্রত্যাশা।