কাঁচা আম দিয়ে খাদ্য তৈরীর বিভিন্ন পদ্ধতি

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৫:২৭ অপরাহ্ণ, মে ১৭, ২০১৮ | আপডেট: ৫:২৭:অপরাহ্ণ, মে ১৭, ২০১৮
কাঁচা আম দিয়ে খাদ্য তৈরীর বিভিন্ন পদ্ধতি

কাসুন্দি জারিত কাঁচা আম। খাবারের পাতে একের পর এক আম সমৃদ্ধ রেসিপি। সন্ধান দিলেন দিশা মণ্ডল

কাঁচা আমের চমচম

উপকরণ: দুধ ৭০০ মিলি, লেবুর রস ২ টেবিল চামচ, সুজি ১ চা চামচ, ময়দা ১ চা চামচ, চিনি ১ কাপ, আম পান্না ১ কাপ, কাঁচা আমের রস ১ কাপ।

প্রণালী: দুধ ফুটে উঠলে আঁচ কমিয়ে লেবুর রস দিন। ছানা কেটে গেলে জলে ধুয়ে নিন। জল ঝরানো ছানা সুজি ও ময়দা দিয়ে মেখে নিন। ছোট ছোট বলের আকার গড়ে নিন। পাত্রে জল ও চিনি দিন। ফুটতে শুরু করলে ছানার বল ছেড়ে দিন। চমচম ফুলে উঠলে আমের রস ও আম পান্না দিন। রস ঘন হয়ে এলে নামিয়ে নিন। পরিবেশন করার পাত্রে রস ঢেলে অর্ধেক করে কাটা চমচম সাজান। চমচমের উপর আমের ঘন সবুজ জেলি দিয়ে পরিবেশন করুন।

আমে দুধে মাছ

উপকরণ: পমফ্রেট ৩টি, নারকেল তেল আধ কাপ, পেঁয়াজ ১০০ গ্রাম, কাঁচা লঙ্কা কুচি ৩ টেবিল চামচ, আদা ৩ টেবিল চামচ, লঙ্কা গুঁড়ো ২ টেবিল চামচ, হলুদ গুঁড়ো ১ টেবিল চামচ, কাঁচা আম ৩০০ গ্রাম, নুন স্বাদ মতো, চিনি অল্প, কারি পাতা ২০টি, নারকেলের দুধ
১ লিটার।

প্রণালী: কড়াইয়ে তেল গরম করে নুন-হলুদ মাখানো পমফ্রেট মাছ ভেজে তুলে নিন। অর্ধেক কাঁচা আম, একটি কাঁচা লঙ্কা এবং ৬-৭টি কারি পাতা বেটে রাখুন। তেল গরম করে পেঁয়াজ কুচি, আদা কুচি, কাঁচা লঙ্কা কুচি দিন। পেঁয়াজ লালচে হয়ে এলে হলুদ-লঙ্কা গুঁড়ো দিন। মশলা কষানো হলে জল দিয়ে ফুটতে দিন। তাতে কাঁচা আমের টুকরো, নুন, কারি পাতা দিন। আম সিদ্ধ হয়ে এলে লঙ্কা-কারি পাতা-আম বাটা দিয়ে নাড়াচাড়া করুন। এ বার নারকেলের দুধ ও চিনি দিয়ে নেড়ে মাছ দিয়ে দিন। সামান্য ফুটিয়ে নামিয়ে নিন।

কাঁচা আমের স্যালাড

উপকরণ: ভুট্টার দানা ১ কাপ, পেঁয়াজ কুচি ২ টেবিল চামচ, স্প্রিং অনিয়ন ২ টেবিল চামচ, লাল বেলপেপার অর্ধেক, কাঁচা আম ১টি, সেলেরি আধ টেবিল চামচ, চেরি টম্যাটো ৬টি, আনারস কুচি ১ টেবিল চামচ, পার্সলে কুচি ১ চা চামচ, ধনেপাতা কুচি ১ চা চামচ, বেসিল পাতা ৪টি, অলিভ ৭-৮টি, পাতিলেবুর রস ২ চা চামচ, অলিভ অয়েল ১ টেবিল চামচ, ব্ল্যাক সল্ট আধ চা চামচ, সাদা মরিচ গুঁড়ো আধ চা চামচ, নাচোস অল্প।

প্রণালী: ফুটন্ত গরম জলে ভুট্টার দানা কয়েক মিনিট ভিজিয়ে রেখে তুলে নিন। ভুট্টার জল ঝরিয়ে রাখুন। পেঁয়াজ, স্প্রিং অনিয়ন, লাল বেলপেপার, কাঁচা আম, আনারস, সেলেরি কুচো করে রাখুন। চেরি টম্যাটো দু’টুকরো করে কেটে নিন। একটি বাটিতে ভুট্টা, পেঁয়াজ, স্প্রিং অনিয়ন, বেল পেপার, কাঁচা আম, আনারস, সেলেরি কুচি, চেরি টম্যাটো, পার্সলে, ধনে পাতা, বেসিল, অলিভ দিন। তার সঙ্গে নুন, সাদা মরিচ গুঁড়ো, পাতিলেবুর রস ও অলিভ অয়েল দিয়ে ভাল করে মিশিয়ে নিন। নাচোসের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

আমের কাবাব

উপকরণ: কাঁচা আম ২টি, বেসন আধ কাপ, চালের গুঁড়ো ২ টেবিল চামচ, টক দই ১ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ কুচি ৪ টেবিল চামচ, কাঁচা লঙ্কা কুচি ১ টেবিল চামচ, ক্যাপসিকাম ২ টেবিল চামচ, হলুদ গুঁড়ো ১ চা চামচ, ভাজা জিরে গুঁড়ো ১ টেবিল চামচ, ধনে গুঁড়ো ১ টেবিল চামচ, গরম মশলা গুঁড়ো ১ চা চামচ, চাট মশলা ২ চা চামচ, তন্দুরি মশলা ২ চা চামচ, চিনি ১ চা চামচ, নুন স্বাদ মতো, সাদা তেল ২ টেবিল চামচ।

প্রণালী: আম কুরিয়ে রাখুন। একটি বাটিতে তেল বাদে সমস্ত উপকরণ মিশিয়ে নিন। মিশ্রণ থেকে ছোট ছোট কাবাবের আকার গড়ে তুলুন। তেল গরম করে কাবাবের দু’পিঠ লালচে করে ভেজে তুলে নিন। গরম গরম পরিবেশন করুন কাঁচা আমের কাবাব।

আম চিংড়ির পোলাও

উপকরণ: গোবিন্দভোগ চাল ১০০ গ্রাম, চিংড়ি ১৫০ গ্রাম, কাঁচা আম ১টি, চিনে বাদাম ২ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ কুচি
২ টেবিল চামচ, হলুদ গুঁড়ো ১ চা চামচ, গরম মশলা গুঁড়ো ১ চা চামচ, গোটা গরম মশলা ১ চা চামচ, কাঁচা লঙ্কা কুচি ২ টেবিল চামচ, নারকেল কুচি ২ টেবিল চামচ, নারকেলের দুধ ৩ টেবিল চামচ, নুন স্বাদ মতো, চিনি ৩ টেবিল চামচ, ঘি ২ চা চামচ, সাদা তেল ২ টেবিল চামচ।

প্রণালী: চাল আধসিদ্ধ করে নামিয়ে, জল ঝরিয়ে শুকিয়ে নিন। তেল গরম করে নুন-হলুদ মাখানো চিংড়ি ভেজে তুলে নিন। ওই তেলে গোটা গরম মশলা ফোড়ন দিন। পেঁয়াজ, লঙ্কা, হলুদ গুঁড়ো, আমের টুকরো দিয়ে নাড়ুন। আম গলে এলে ভাজা চিনে বাদাম, নারকেল দিন। এ বার আধসিদ্ধ ভাত, নুন, চিনি, নারকেলের দুধ, ঘি দিন। উপর থেকে চিংড়ি ছড়িয়ে দমে বসান। কিছু ক্ষণ পর ঢাকনা খুলে নেড়ে নামিয়ে নিন। পরিবেশন করুন আম চিংড়ির পোলাও।