অত্যাচারে অতিষ্ট হয়ে বিএম কলেজ ছাত্রীকে হলথেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কারের দাবী

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১১:১৭ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২৩, ২০১৮ | আপডেট: ১১:১৭:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২৩, ২০১৮
অত্যাচারে অতিষ্ট হয়ে বিএম কলেজ ছাত্রীকে হলথেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কারের দাবী

ব‌রিশাল :

নানানভাবে অত্যাচারে অতিষ্ট হয়ে বরিশাল সরকারি ব্রজমোহন (বিএম) কলেজের ছাত্রী ও কথিত ছাত্রলীগের নেত্রী ফারাজানা আক্তার ঝুমুরকে হল থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কারের দাবী জানিয়েছে সাধারণ ছাত্রীরা। এ ঘটনায় আজ সোমবার (২৩) এপ্রিল দুপুরে দ্বিতীয় দফায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন বনমালি গাঙ্গুলী ছাত্রীনিবাসের সাধারন ছাত্রীলা। বিষয়টি নিশ্চিত করে ছাত্রীনিবাসের ১ নম্বর ভবনের জান্নাতুল ফেরদাউস জানান, তারা আজ কলেজ অধ্যক্ষ্য-উপাধাক্ষসহ শিক্ষকমন্ডলীর উপস্থিতিতে কথিত ছাত্রীনেত্রী ঝুমুর বিরুদ্ধে অভিযোগ দিয়েছেন। যেখানে ঝুমুরকে হল থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কারের দাবী জানানো হয়েছে। আর বিষয়টি বিবেচনা করে দেখবেন বলে জানিয়েছেন কলেজ অধ্যক্ষ।

হলের সকল সাধারণ ছাত্রীদের পক্ষে ১৮ জনের নাম উল্লেখ করে দেয়া ওই অভিযোগ সূ্ত্রে জানাগেছে,  ২২ এপ্রিল রোববার কলেজ অধ্যক্ষ বরাবর বিএম কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের ৩য় বর্ষের ছাত্রী ঝুমুরের বিরুদ্ধে একটি স্মারকলিপি দেয় সাধারণ ছাত্রীরা। এরপর থেকে ছাত্রীদের নানানভাবে হুমকি দেয়া হচ্ছিলো। সাধারণ ছাত্রীরা ক্ষিপ্ত হয়ে ওইদিন বিকেলেই গনধোলাই দেয়। পরে কোতোয়ালি থানা পুলিশের সদস্যরা এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। আজ ২৩ এপ্রিল সকালে ঝুমুর হলে এসে দারোয়ান ও হলের নিবাসী জান্নাতকে গালগাল করে। লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, ঝুমুরের বিরুদ্ধে স্থানীয় থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।

এছাড়া বিপ্লব কুমার ভট্টাচার্য নামের এক শিক্ষক হোষ্টেল সুপার থাকাকালীন সময়ে ঝুমুরকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছিলো। পরে কোন ধরণের অপ্রিতীকর ঘটনা না ঘটানোর মুচলেকা দিয়ে হোষ্টেলে প্রবেশ করে ঝুমুর। এদিকে রোববার (২২ এপ্রিল) দুপুরে কলেজের অধ্যক্ষ বরাবর উপাধ্যক্ষ স্বপন কুমার পালের মাধ্যমে দেয়া স্মারকলিপির অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, কলেজের বনমালী গাঙ্গুলী ছাত্রীনিবাসের আবাসিক ছাত্রী করে ফারজানা আক্তার ঝুমুর ছাত্রলীগের কথিত নেত্রী দাবী দীর্ঘদিন যাবৎ সাধারণ ছাত্রীদের নানানভাবে অত্যাচার করে আসছে।তার কথা না শুনলে সিনিয়র-জুনিয়র না মেনে রাজনীতির দোহাই দিয়ে সবাইকে মারধর করে। অভিযোগে ঝুমুর ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িত থাকার কথা উল্লেখ করে বলা হয়, গত ৩ বছর বনমালী গাঙ্গুলী হোষ্টেলে থাকাকালীন সময়ে ঝুমুর অনেক সিনিয়র ছাত্রীদেরও গায়ে হাত তুলেছেন। অভিযোগে উল্লখ করা হয়. পহেলা জানুয়ারী বনমালী গাঙ্গুলী ছাত্রীনিবাসের ২নং ভবনের ছাত্রী ঐশীকে ঘুমন্ত অবস্থায় বেধড়ক মারধর করা হয়। পরবর্তীতে ঐশীকে ছাত্রী নিবাস থেকে বের করে দেয়া হয়। ১৯ মার্চ ২নং ভবনের আবাসিক ছাত্রী শারমিনকে বেধড়ক মারধর করে। সর্বশেষ ২০ এপ্রিল জান্নাত ও ইভা নামে দুই ছাত্রীকে র‌্যাগ দেয়া হয়।

ওই লিখিত অভিযোগে ছাত্রীরা হল থেকে ঝুমুরকে হোষ্টেল থেকে বহিষ্কারের দাবী জানান। বনমালী গাঙ্গুলী ছাত্রী নিবাসের ২নং ভবনের আবাসিক ছাত্রী রহিমা আফরোজ ইভা জানান, দীর্ঘদিন যাবৎ রাজনৈতিক দোহাই দিয়ে ঝুমুর অস্বাভাবিক পথে চলছে। আর তার কথা মত কেউ না চললেই তার বিরুদ্ধে ক্ষিপ্ত হয়ে যায় সে। সাধারণ ছাত্রীরা জানান, রোববার ঝুমুরের বিরুদ্ধে অভিযোগ দেয়ার পর জান্নাতসহ বেশকিছু ছাত্রীকে নানানভাবে হুমকি দেয়া হচ্ছিলো। তাই সন্ধ্যায় বরিশাল সরকারি ব্রজমোহন কলেজের বনমালী গাঙ্গুলী ছাত্রী নিবাসে ঝুমুর নামের ওই ছাত্রীকে সাধারণ ছাত্রীরা মারধর করে। এসময় ছাত্রী নিবাসের ১০০০(এ) ২নং বিল্ডিং এ ঝুমুরের রুমের আসবাবপত্র ভাংচুর করে বিক্ষুদ্ধ ছাত্রীরা। পরে ছাত্রীরা হোষ্টেলের সামনের সড়কে এসে বিক্ষোভও করে। পরবর্তীতে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। আর বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন বিএম কলেজের উপাধ্যক্ষ স্বপন কুমার পাল।