দশমিনায় সংখ্যালঘুর জমি দখলের চেষ্টায় ভাংচুর,থানায় মামলা

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১১:৩৮ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২২, ২০১৮ | আপডেট: ১১:৩৮:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২২, ২০১৮
দশমিনায় সংখ্যালঘুর জমি দখলের চেষ্টায় ভাংচুর,থানায় মামলা

ফয়েজ আহমেদ প্রতিনিধি দশমিনা।।

পটুয়াখালীর,দশমিনা উপজেলার  দশমিনা সরকারী আব্দুর রসিদ তালুুকদার ডিগ্রি কলেজের উত্তর পাশে এক হিন্দু পরিবারের জমি দখলের চেষ্টা চালিয়েছে স্থানীয় প্রভাবশালী রাজ্জাক প্যাদা এবং আমির হোসেনরা।এঘটনায় ঐ সংখ্যালঘূ পরিবারের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে।

স্থানীয় বিভিন্ন সূত্র জানায়, রবিবার সকালে দশমিনা আবদুর রসিদ সরকারী আব্দুর রসিদ তালুকদার ডিগ্রি কলেজের উত্তর পাশে দশমিনা বাউফল প্রধান সড়কের  পশ্চিম পাশে রঘুনাথ শীলের ছেলে পরিমল চন্দ্র শীল তার স্ত্রী সাধনা রানী শীলের নামে ১৩৩নং মৌজা চরহোসনাবাদ গ্রামের নুরুল হক খা ও বেল্লাল হোসেন খার নিকট হতে মোট ০৮শতাংশ জমি ২০০৯ সালের ০২ জুন তারিখের রেজিস্ট্রি কবলা দলিলমুলে ঐ জমিতে ঘর করে বসবাস করে আসছে।  রবিবার সকালে স্থানীয় প্রভাবশালী রাজ্জাক প্যাদা এবং আমির খান সহ ১৫/২০ জন মিলে পরিমলের জমি দখল নিতে তার টিন সেটের একটি ঘর ভাংচুর করে মাটিতে মিশিয়ে দেয়। এসময় তারা পরিমলের সবজি ক্ষেত ও তার রোপন করা বিভিন্ন প্রজাতির গাছের চারার ক্ষতি সাধন করেন। ঘটনার সময় আতংকে সংখ্যালঘূ পরিবারের নারী ও শিশুরা পালিয়ে অন্যত্র চলে গিয়ে রক্ষা পায়। খবর পেয়ে দশমিনা থানার অফিসার ইন চার্জ ওসি রতন কৃঞ্চ রায় চৌধুরী এবং এএসপি (সার্টকেল) মোঃ হাফিজুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। দশমিনা থানার ওসি রতন কৃষ্ণ রায় চেীধুরী এ বলেন,বিষয়টি সম্পর্কে ইতিপূর্বেও  একাধিকবার যায়গাটি দখলের চেস্টা চালায় এবং থানা পুলিশে উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায়। গতকাল পুনরায় যায়গাটি দখল নিতে গেলে,বাদী থানায় লিখিত অভিযোগ করে প্রথমে আমি অফিসার পাঠাই এবং পরে আমি নিজে সরেজমিন পরিদর্শন করি ও আমার উর্দ্ধুতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করি। এব্যাপারে অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিনে তদন্ত এবং সাক্ষ্যপ্রমানের ভিত্তিতে দুইজনকে আসামী করে একটি রেহুলার মামলা রুজু করি। দশমিনা থানার মামলা নং-০৮/তারিখ- ২২এপ্রিল২০১৮।  এএসপি (সার্কেল মোঃ হাফিজুর রহমান বলেন, এঘটনায় অপরাধীদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনী ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।