নৌকা বিজয়করতেসকলে বিভেদ ভুলে একসাথে কাজকরতে হবে :তালুকদার আব্দুল খালেক

প্রকাশিত: ৭:২৯ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৭, ২০১৮ | আপডেট: ৭:২৯:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৭, ২০১৮

আওয়ামী লীগ মনোনীত খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র প্রার্থী, সাবেক খুলনা সিটি মেয়র ও মোংলা-রামপালের (বাগেরহাট-০৩) বারবার নির্বাচিত সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, আমি আমার এই মোংলা-রামপাল আসন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে পদত্যাগ করেছি। এই আসন শূণ্য ঘোষণা করা হয়েছে এবং আমাকে দলের পক্ষ থেকে খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।

মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার পর যাচাই-বাছাই সম্পন্ন হয়েছে। আমি দীর্ঘ ২৭ বছর মোংলা-রামপালের মানুষের সুখ-দু:খ মিলিয়ে সবকিছুর সাথেই ছিলাম। আমি যেখানেই থাকি না কেন সব সময় আপনাদের সাথে আছি, ছিলাম এবং থাকবো। আপনারা আমাকে ১৯৯১ সাল থেকে এ এলাকার জন্য ভোট দিয়ে নির্বাচিত করে আসছেন। আমি ব্যক্তিগতভাবে আপনাদের কাছে ঋনী। তাই আমার নতুন কার্যক্রম শুরু করার আগেই আপনাদের কাছ থেকে বিদায় নিতে হচ্ছে। ১৯৯১ সালে সর্বপ্রথম আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক নিয়ে আমি যখন মোংলা-রামপালে এসেছিলাম তখন যে কয়জন ব্যক্তি আমাকে এই এলাকার পথ দেখিয়েছিলেন তার অনেকেই এখন আর বেচে নেই। আমি তাদেরকে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করছি, তাদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন ডা: শাজাহান। যিনি দলের বলিষ্ঠ একজন নেতা ছিলেন। তিনি মোমবাতি জ্বালিয়ে সাংগঠনিক কাজ-কর্ম চালিয়ে ছিলেন।

 

এছাড়া আমার কাজ কর্মে সর্বাত্মক সহযোগীতা করেছিলেন পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম শেখ আব্দুল হাই। নির্বাচনী মাঠে ইদ্রিস আলী ও মরহুম শাহজাহান শিকারী আমাকে অনেক সহায়তা করেছিলেন। আগামী ১৫ মে’র খুলনা সিটি করপোরেশনের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আপনারা আপনাদের আত্মীয়-স্বজনদের সাথে নিয়ে আমার নৌকা প্রতীককে বিজয়ী করার জন্য যে যার অবস্থান থেকে কাজ করবেন সেই আশা রাখি। বিগত দিনের সকল বিভেদ ভুলে একসাথে কাজ করলে অবশ্যই নৌকা প্রতীকের বিজয় হবে।

তিনি আরো বলেন, ৮০ দশকে জিয়াউর রহমান ও হোসাইন মোহাম্মদ এরশাদ যখন ক্ষমতায় ছিল তখন এ এলাকায় অত্যাচার, নির্যাতন ও ঘের দখলসহ অলিখিত বেআইনি কর্মকান্ড চালানো হয়েছিল। আর আমি নির্বাচিত হওয়ার পর এলাকায় সকল মানুষ শান্তিতে বসবাস করে আসছে। এটা সম্ভব হয়েছে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার কারণে, শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হওয়াতে। শেখ হাসিনার কারণে মোংলার পরিবর্তন হয়েছে, মোংলার মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন হয়েছে। মোংলা বন্দর, ইপিজেড, অর্থনৈতিক অঞ্চল, খানজাহান আলী বিমান বন্দর সব কিছুই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের অবদান। রামপাল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র ও পদ্মা সেতুর সুফল ভোগ করবে এলাকার মানুষ।

 

মোংলা বন্দর শ্রমিক সংঘ চত্বরে আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিশাল কর্মী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক এসব কথা বলেন।

 

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুনীল কুমার বিশ্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন সাবেক স্থানীয় সংসদ সদস্য হাবিবুন নাহার, উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কামরুন নাহার হাই, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম হোসেন, পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শেখ আব্দুস সালাম, সাধারণ সম্পাদক শেখ আ: রহমান, সকল ইউনিয়নের চেয়ারম্যানবৃন্দ সহ যুবলীগ, শ্রমিকলীগ, সেচ্ছাসেবকলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।