বীরগঞ্জে ভালবাসার ফাঁদে ফেলে জোর পূর্বক ধর্ষনের অভিযোগ

এন.আই.মিলন এন.আই.মিলন

দিনাজপুর প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৭:৩৪ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৫, ২০১৮ | আপডেট: ৭:৩৪:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৫, ২০১৮

দিনাজপুরের বীরগঞ্জে স্কুল ছাত্রীকে ভালবাসার ফাঁদে ফেলে জোর পূর্বক ধর্ষনের অভিযোগে ধর্ষক আটক। অতঃপর হামলা চালিয়ে ধর্ষককে ছিনিয়ে নিয়ে গেছে ধর্ষকের স্বজনেরা।
১৫ এপ্রিল মাহির বাবা মজিবর রহমান বীরগঞ্জ প্রেসক্লাবে উপস্থিত হয়ে এক লিখিত অভিযোগে জানান, উপজেলার পলাশবাড়ী ইউনিয়নের ব্রার্ম্মনভিট্টা গ্রামের আইমারডাঙ্গা এলাকার হেলালের পুত্র কম্পিউটারে লোড-আনলোড ব্যবসায়ী লম্পট ফারুক একই গ্রামের মজিবরের মেয়ে ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী মোছাঃ মিম আক্তার মাহি (১৫)কে বিবাহের প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন সময়ে মোবাইলে কল দিয়ে প্রেমের গল্পসহ উত্তোক্ত, কু-প্রস্তাব ও বিবাহের প্রলোভন দেখিয়ে আসছিল।

মাহির মা মেয়েকে বাড়ীতে রেখে গত বৃহস্পতিবার রাতে বাবার বাড়ী ঠাকুরগাঁঁও গেলে প্রেমের সুত্র ধরে প্রেমিক ফারুক প্রেমিকা মাহির বাড়ীতে গিয়ে ঘরে ঢুকে প্রেমালাপের এক পর্যায় জোর পূর্বক ধর্ষন করে। মাহির চিৎকারে গ্রামের লোকজন ছুটে এসে ধর্ষককে আটক করে। খবর পেয়ে ফারুকের আত্মীয় ও প্রতিবেশী কাঞ্চন, নয়ন, সবুজ, মিলন ও রুহুলসহ একদল যুবক ধর্ষককে ছিনিয়ে নিয়ে যায়। ঐ সময় গ্রামবাসী ২টি মটরসাইকেলসহ ২ জনকে আটক করে। রাতেই পলাশবাড়ী ইউপি সদস্য সবিতা রানী ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ৭২ ঘন্টার মধ্যে ধর্ষককে ফিরিয়ে দেওয়ার অঙ্গিকার করলে আটকৃতদের মটর সাইকেল সহ ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।
নির্ধারিত সময়ে ধর্ষককে না পেয়ে হতাস হয়ে মাহির বাবা মামলা দায়েরের প্রস্ততি গ্রহন করেছে বলে জানান। অভিযুক্ত ফারুকের দোকানে ও বাড়ীতে গিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি। সাহাবুদ্দিনসহ এলাকবাসী ও ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ জুয়েলুর রহমান সংবাদের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।