মুক্তিযুদ্ধের মূল লক্ষ্য ছিল মেধাভিত্তিক সমাজ ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করা : সোহেল তাজ

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১২:২৮ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ১২, ২০১৮ | আপডেট: ১২:২৮:পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ১২, ২০১৮

কেএম হোসাইন : সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনে নেমেছে শিক্ষার্থীরা। এই আন্দোলন নিয়ে রাজনীতিতে নীরব থাকা সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ও সংসদ সদস্যের পদ ছেড়ে আলোচনায় আসা তানজিম আহমেদ সোহেল তাজ ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। বুধবার বিকাল ৫টায় জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এ সংক্রান্ত একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন তিনি।

তিনি স্ট্যাটাসে বলেন, ‘বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম মূল লক্ষ্য ছিল একটি মেধাভিত্তিক সমাজ ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করা- এমন একটি ব্যবস্থা যেখানে যোগ্যতাই হবে মূল মাপকাঠি’

 

যদিও এর কিছুক্ষণ পরে জাতীয় সংসদে এক প্রশ্নোত্তরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, কোটা পদ্ধতি থাকারই দরকার নাই বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘কয়েকদিন পর তো আবার আরেক দল এসে বলবে, আবার সংস্কার চাই। তো কোটা থাকলেই সংস্কার। আর না থাকলে সংস্কারের কোনও ঝামেলাই নাই। কাজেই কোটা পদ্ধতি থাকারই দরকার নাই।’ তিনি আরও বলেন, ‘সাধারণ মানুষ বারবার কষ্ট পাবে কেন? এই বারবার কষ্ট বন্ধ করার জন্য আর বারবার এই আন্দোলন-ঝামেলা মেটানোর জন্য কোটা পদ্ধতিই বাতিল। পরিষ্কার কথা। আমি এটাই মনে করি, সেটা হলেই ভালো।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, মেয়েরাও রাস্তায় নেমে গেছে, কোটা চায় না। তাহলে কোটা পদ্ধতি থাকার কী দরকার? প্রতিবন্ধী ও ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীকে আমরা অন্যভাবে চাকরির ব্যবস্থা করব।

উল্লেখ্য, কোটা সংস্কার দাবিতে রোববার দুপুরে পূর্বঘোষিত গণপদযাত্রা শেষে শাহবাগ মোড় অবরোধ করেন শিক্ষার্থীরা। পরে রাত ৮টার দিকে তাদের ওপর পুলিশ চড়াও হলে সংঘর্ষ শুরু হয়। সোমবার সকাল পর্যন্ত পুলিশ ও ছাত্রলীগের সঙ্গে দুই শতাধিক শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থী আহত হন। এছাড়া শতাধিক আন্দোলনকারীকে আটক করা হয়। মঙ্গলবার তাদের মুক্তি দেয়া হয়।

অর্থমন্ত্রী ও কৃষিমন্ত্রীর বিতর্কিত মন্তব্যের পর কোটা সংস্কারে প্রধানমন্ত্রীর সুস্পষ্ট ঘোষণা না আসা পর্যন্ত আগের মতো আন্দোলন কর্মসূচি চালিয়ে যেতে মঙ্গলবার ফের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের ঘোষণা দেয়া হয়।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বলেন, কোটা পদ্ধতি বাতিলের কথা জানিয়ে জাতীয় সংসদে দেওয়া প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য বিশ্লেষণ করে আগামীকাল (বৃহস্পতিবার) সকাল ১০টায় তাদের সিদ্ধান্ত জানাবেন।