বাংলাদেশি সাজিয়ে রোহিঙ্গা নারীর পাসপোর্ট করার চেষ্টা

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৯:২২ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ৮, ২০১৭ | আপডেট: ৯:২২:পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ৮, ২০১৭
বাংলাদেশি সাজিয়ে রোহিঙ্গা নারীর পাসপোর্ট করার চেষ্টা

রোহিঙ্গা নারীকে নিজের মেয়ে সাজিয়ে পাসপোর্ট করতে এসে আটক হয়েছেন টেকনাফের এক ব্যক্তি। তারসঙ্গে আটক হয়েছেন কথিত মেয়ে রোজিনাও।

মঙ্গলবার বিকেলে কক্সবাজার অাঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক অাবু নাঈম মাসুম এদের দু’জনকে পুলিশে সোপর্দ করেন। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে কারাদণ্ড দিয়ে তাদের কারাগারে পাঠান কক্সবাজার সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নোমান হোসেন।

আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস সূত্র জানায়, টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া গ্রামের জনৈক এজাহার আলম তার মেয়ে রোজিনা আকতারের জন্ম নিবন্ধন সনদ, চেয়ারম্যান সার্টিফিকেট ও আনুষাঙ্গিক কাগজপত্র নিয়ে রোহিঙ্গা এক নারীর পাসপোর্ট করাতে আসে। যথারীতি আবেদন কাউন্টারে ফাইল জমা দেয়ার পর কাগজপত্র, ছবি ও আবেদনকারীর আচার আচরণে অসঙ্গতি দেখা গেলে ফাইলটি আটকে চ্যালেঞ্জ করেন সহকারী পরিচালক।

জিজ্ঞাসাবাদের মুখে কথিত বাবা তার মেয়েকে এতদিন চট্টগ্রামে দত্তক দিয়েছিল বলে দাবি করনে। পরে মেয়ে নামধারী রোজিনা চট্টগ্রামে কোথায় ছিল জিজ্ঞেস করলে কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি। আরো প্রশ্ন করার পর তরুণীটি রোহিঙ্গা বলে প্রমাণিত হলে তাদেরকে সদর মডেল থানায় সোপর্দ করা হয়।

বিষয়টি জেলা প্রশাসক মো. আলী হোসেনকে জানানো হলে তিনি কক্সবাজার সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার নোমান হোসেনকে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে সাজা দেয়ার নির্দেশনা দেন। এরপর ইউএনও বাংলাদেশ দণ্ডবিধির ১৮৬ ধারা মোতাবেক এজাহার আলমকে ২ মাসের ও রোহিঙ্গা নারীকে ১ মাসের কারাদণ্ড দেন।