বরিশাল-পটুয়াখালী-বরগুনায় বাস ধর্মঘট চলছে

প্রকাশিত: ৩:৪৯ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৪, ২০১৮ | আপডেট: ৩:৪৯:অপরাহ্ণ, মার্চ ১৪, ২০১৮
বরিশাল-পটুয়াখালী-বরগুনায় বাস ধর্মঘট চলছে

বরিশাল :

বরিশাল-পটুয়াখাল ও বরগুনা জেলায় বাস ধর্মঘট চলছে। বরিশাল, পটুয়াখালী, বরগুনা বাস মালিক শ্রমিক সমন্বয় পরিষদের ব্যানারে বুধবার (১৪ মার্চ) সকাল থেকে এ ধর্মঘট শুরু হয়েছে। ঝালকাঠি বাস মালিক সমিতির সাথে দ্বন্দ্বের কারণে সৃষ্ট ধর্মঘটের ফলে যাত্রীরা পড়েছেন বিপাকে। গন্তব্যে যেতে না পেরে ভোগান্তিতে পড়েছেন অনেকে। বরিশাল মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি সুলতান মাহামুদ বলেন, দীর্ঘদিন ধরে  ঝালকাঠির জেলার সড়ক হয়ে দক্ষিনের ৬টি রুটে সরাসরি বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। ইতিমধ্যে ঝালকাঠি বাস মালিক সমিতি নলছিটির রায়াপুর নামক স্থানে অস্থায়ী বাস টার্মিনাল করে সেখান থেকে তাদের জেলাসহ পিরোজপুর ও খুলনা জেলায় বাস চালনা করছে। কিন্তু বরিশাল মালিক সমিতির গাড়ি ঝালকাঠি ও ঝালকাঠি হয়ে অন্যান্য রুটে চলাচল করতে দিচ্ছে না। এনিয়ে প্রশাসনের সাথে বার বার বৈঠক হলেও এর সমাধান হয়নি। তাই আজ সকাল থেকে বরিশাল থেকে দক্ষিনের ১৭ রুটে বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে।বরিশাল-পটুয়াখালী মিনিবাস সমিতির সাধরান সম্পাদক কাওসার হোসেন শিপন বলেন, ধর্মঘটের কারনে বরিশাল থেকে ১৭ রুট এবং পটুয়াখালী ও বরগুনা জেলা সমন্বয় করায় মোট অর্ধশত রুটে বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে।পটুয়াখালী জেলা বাস মালিক সমিতির সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন মৃধা জানান, বরিশালের সাথে সমন্বয় করে যেহেতু তারা বাস চালনা করেন তাই সমর্থন দিয়েই পটুয়াখালী বাস মালিক সমিতিও বাস চলাচল বন্ধ রেখেছে। তবে ধর্মঘটের দাবীগেলোর মধ্যে ঝালকাঠির সমস্যা ছাড়াও তাদের একটি সমস্যার কথা তুলে ধরা হয়েছে। তিনি বলেন, পটুয়াখালীর  মীর্জাগঞ্জ উপজেলাধীন চান্দুখালী স্থানে কতিপয় চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজ কর্তৃক গাড়ি থেকে চাঁদা আদায় ও যাত্রী হয়রানিসহ বরিশাল-পটুয়াখালী-বরগুনা মালিক সমিতির গাড়ি প্রবেশ করতে দিচ্ছে না। এই সমস্যার সমাধানের দাবীও তারা দীর্ঘদিন ধরে করে আসছেন কিন্তু কোন লাভ হয়নি। গতকাল এ বিষয় নিয়ে তারা মানববন্ধনও করেছেন। অপরদিকে বরগুনা জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি শাহাবুদ্দিন সাবু  বাংলানিউজকে বলেন, সকাল থেকে বরিশাল, পটুয়াখালী, বরগুনা বাস মালিক শ্রমিক সমন্বয় পরিষদের ব্যানারে বরগুনা থেকেও বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। এদিকে গতকাল মঙ্গলবার বরিশাল-পটুয়াখালী মিনিবাস মালিক কর্তৃক অন্যায় ও বেআইনিভাবে ঝালকাঠি জেলার বাস কুয়াকাটাসহ দক্ষিনাঞ্চলে চলাচলে বাধা প্রদান ও জোড়পূর্বক গাড়ী চলাচল বন্ধের হুমকি প্রদানের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।যেখানে ঝালকাঠি বাস মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দ  সড়কে ন্যায্য হিস্যা না দিয়ে অযৌক্তিক দাবি আদায়ে বরিশাল বাস মালিক সমিতি নানা বাস ধর্মঘটের হুমকি দিয়েছে বলে দাবী করেছেন।বরিশাল জেলা বাস মালিক সমিতির সভাপতি ও বরিশাল বিভাগীয় বাস মালিক-শ্রমিক সমন্বয় ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল হক শাহিন বলেন, ঝালকাঠির ওপর দিয়ে বরিশালের গাড়ি  চলতে না দেয়া পর্যন্ত এই ধর্মঘট অব্যাহত থাকবে। পাশাপাশি মীর্জাগঞ্জে কথিত বাস মালিক সমিতির বেআইনিভাবে চাঁদাবাজিও বন্ধ করতে হবে। বরিশাল বিভাগে চলাচলরত দূরপাল্লার বাসগুলোও এ ধর্মঘটের অন্তর্ভুক্ত থাকবে বলেও জানান তিনি।এদিকে বরিশাল কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল থেকে সকল রুটে বাস চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে বলে জানিয়েছেন বাস মালিক গ্রুপের সভাপতি আফতাব হোসেন। ধর্মঘটের আওতায় না থেকে ঝালকাঠি মালিক সমিতিও তাদের জেলায় বাস চালনা করে আসছে।