জামিন পেলেন না খালেদা, নথি আসার পর আদেশ

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১২:৩৩ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০১৮ | আপডেট: ১২:৩৩:পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০১৮
জামিন পেলেন না খালেদা, নথি আসার পর আদেশ

আজও জামিন পেলেন না জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া। নিন্ম আদালতের দেয়া রায়ের নথি আসার পর এ বিষয়ে আদেশ দেয়া হবে।

রবিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) বিকেল পৌনে ৪টার দিকে দ্বিতীয় দিনের শুনানি শেষে বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। এর আগে দুপুর পৌনে ৩টায় শুনানি শুরু হয়। শেষ হয় সাড়ে ৩টায়।

এদিনে দুপুর আড়াইটার দিকে জামিন আবেদনের শুনানিকে কেন্দ্র করে আদালতে দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক ও খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের মধ্যে চরম উত্তেজনা সৃষ্টি। এ ঘটনায় পর বিচারপতিরা তাদের মধ্যে সৃষ্ট উত্তেজনার কারণে এজলাস ছেড়ে চলে যান। এ সময় উভয় পক্ষের আইনজীবীদের শান্ত থাকার নির্দেশ দেন আদালত।

পরে দুপুর পৌনে ৩টার দিকে আবার এজলাসে বসেন বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিম। এরপর জামিন আবেদনের ওপর শুনানি শুরু হয়।

শুনানিতে বয়স, অসুস্থতা, সামাজিক মর্যাদা বিবেচনায় খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন করেন তাঁর আইনজীবীরা। এসময় রাষ্ট্রপক্ষ অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম দুর্নীতি প্রমাণ হয়েছে তাই খালেদা জিয়ার আবেদন বিরোধীতা করেন।

আজ জামিন আবেদনের উপর দ্বিতীয় দিনের শুনানি চলে। এর আগে গত বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) প্রথম দিন শুনানি হয়। পরে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে শুনানি মুলতবি করে পরবর্তী শুনানি জন্য আজকের দিন ধার্য করেন আদালত।

ওইদিন (২২ ফেব্রুয়ারি) ১ হাজার ২২৩ পৃষ্ঠার আপিল দায়ের করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবী ব্যারিস্টার কায়সার কামাল। এতে প্রাথমিকভাবে মোট ৪৪টি যুক্তি তুলে ধরা হয়েছে। এছাড়া আপিল আবেদনের ওকালতনামায় খালেদা জিয়ার পক্ষে মোট ২৮ জন আইনজীবীর স্বাক্ষর রয়েছে। পরে শুনানি শুরু হলে জামিন আবেদন করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর বকশীবাজারের আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫ নং বিশেষ জজ ড. আখতারুজ্জামান এ মামলায় খালেদা জিয়াকে ৫ বছরের কারাদণ্ড দিয়ে রায় ঘোষণা করেন। রায়ে তারেক রহমানসহ বাকিদের ১০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। রায় ঘোষণার পর ওই দিনই কড়া নিরাপত্তায় খালেদা জিয়াকে ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে নেয়া হয়। বর্তমানে তিনি সেখানেই বন্দী আছেন।