ঢাকা, ||

৩ বছর লিভ টুগেদার করেছেন কঙ্গনা


বিনোদন

প্রকাশিত: ৬:২৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩, ২০১৭

আব্দুল্লাহ আল নোমান

বরগুনা প্রতিনিধি

আদিত্য পাঞ্চালির সঙ্গে সম্পর্ক ছিল কঙ্গনার। একথা সবার জানা। তা নিয়ে কম আলোচনা হয়নি। বিচ্ছেদের পর একে অপরের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ করেছেন। এবার আদিত্যর বিরুদ্ধে শারীরিক নিগ্রহের অভিযোগ আনলেন কঙ্গনা।

কঙ্গনার থেকে বয়সে প্রায় ২০ বছরের বড় আদিত্য পাঞ্চালি। তাঁর স্ত্রী ও ছেলে রয়েছে। সেই আদিত্য একবার বলেছিলেন, তিনি আর কঙ্গনা স্বামী-স্ত্রীর মতো থাকেন। নিজেদের জন্য একটি বাড়ি বানিয়েছেন। তিনবছর এক বন্ধুর বাড়িতে কাটিয়েছেন। অ্যামেরিকাতেও একটি বাড়ি করেছেন।

কঙ্গনা যে ফোনটি ব্যবহার করেন সেটিও তাঁর কিনে দেওয়া। মোট কথা কঙ্গনার যাবতীয় দায়দায়িত্ব তিনি বহন করছেন, তাই বোধহয় প্রমাণ করার চেষ্টা করেছিলেন।

এর আগে একাধিক সাক্ষাৎকারে কঙ্গনা জানিয়েছেন, দিনের পর দিন তাঁকে একজনের হাতে অত্যাচারিত হতে হয়েছে। বন্দির মতো জীবনযাপন করতে হয়েছে। একবার তো তাঁকে মেরে মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়। তখন তিনি মাত্র ১৭ বছর বয়সের। কে সেই ব্যক্তি? তা নিয়ে আলোচনা কম হয়নি। সম্প্রতি একটি টক শো-তে সেই নাম সামনে এনেছেন কঙ্গনা। জানিয়েছেন, আদিত্য পাঞ্চালি তাঁকে মাথা ফাটিয়ে দিয়েছিলেন। দিনের পর দিন অত্যাচার করেছিলেন।

তবে, আদিত্য মারধর করলেও কঙ্গনা বিশ্বাস করতেন আদিত্যর স্ত্রী জারিনাকে। মারের হাত থেকে বাঁচতে তাঁকে খুঁজতেন। কঙ্গনার সঙ্গে ব্রেকআপের পর আদিত্য আবার স্ত্রীর কাছে ফিরে যান।বলেছিলেন, জারিনা তাঁর শক্তি। এতকিছুর পরেও জারিনা তাঁর সঙ্গে আগামী সাতজন্ম থাকতে চেয়েছে।

Top