ঢাকা, ||

রবি ইয়োন্ডার বিরুদ্ধে ফরিদা পারভীনের মামলা


আইন আদালত

প্রকাশিত: ১০:১২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৭

আব্দুল্লাহ আল নোমান

বরগুনা প্রতিনিধি

বাংলাদেশের জনপ্রিয় লোকসংগীত তথা লালন সংগীতশিল্পী ফরিদা পারভীন প্রতারণার অভিযোগ এনে দুটি পৃথক মামলা করেন সম্প্রতি।রাজধানীর গুলাশান ও ধানমন্ডি থানায় অবৈধভাবে গান ব্যবহারের অভিযোগে তিনি মামলা দায়ের করেন। গুলশান থানায় সংগীতশিল্পী জানে আলম ও ইকবাল হোসেনসহ মোট ৮ জনের নামে মামলাটি করা হয়। মামালা নম্বর হচ্ছে -১১৯৪/১৭।

এ মামলায় অভিযুক্তরা হলেন- ইমরুল করিম, কান্ট্রি ম্যানেজার- ইয়োন্ডার মিউজিক বাংলাদেশ, মাজহারুল ইসলাম, ব্যবস্থাপনা পরিচালক- লেজার ভিশন, রাজু, নির্বাহী কর্মকর্তা- ইয়োন্ডার মিউজিক বাংলাদেশ।গত ২০ আগস্ট ২০১৭ গুলশান থানায় দায়েরকৃত মামলায় ইয়োন্ডার মিউজিক বাংলাদেশ লি: এর চীফ কো-অর্ডিনেটর মেহেদীকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এ বিষয়ে ফরিদা পারভীনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘আমি এ বিষয়ে এখন কথা বলতে চাচ্ছি না। যা হবার তা পরে জানতে পারবেন।’এ বিষয়ে মামলার বাদী পক্ষের বাবুল চৌধুরীর সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন- ‘আমাদের মিউজিক ইন্ডাস্ট্রির এখন অসময় চলছে। আপনি নিউজটি করবেন না, আপনি নিশ্চয়ই সংগীত পছন্দ করেন। এখন এরকম নিউজ করলে আমাদের ইন্ডাস্ট্রির অনেক বড় ক্ষতি হয়ে যাবে। কেননা ব্যবসার অবস্থা তেমন ভাল নয়।’

জি সিরিজের স্বত্বাধিকারী নাজমুল হক ভুঁইয়া খালেদ বলেন, ‘এ বিষয়টা পুরানো বিষয়। এটা তো লালনগীতি। একটা গান কয়েকটা জায়গায় বিক্রি করেছেন। আমরা গানগুলো কিনেছি ডন মিউজিক থেকে। ডনের সাথে অামাদের চুক্তি আছে। তার প্রমাণও আছে। ডন যে পেমেন্ট নিয়েছে তার ও প্রমাণ আমাদের কাছে রয়েছে। তারপর ও তিনি কী করে মামলা করলেন বুঝতে পারছি না।’

অন্যদিকে কয়েকটি অডিও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কথা বললে তারা জানান, মিউজিক ইন্ডাস্ট্রিতে কপিরাইট আইনের অপব্যাখ্যা ও অপপ্রয়োগ করে কতিপয় ব্যক্তি মামলাবাজির মাধ্যমে প্রতারণা ও ব্ল্যাকমেইলের ত্রাস সৃষ্টি করছে বলে তারা মনে করেন।
তবে এ বিষয়ে বক্তব্যর জন্য রবি ইয়োন্ডার কাউকে পাওয়া যায়নি এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত।

Top