ঢাকা, ||

ভালুকায় ধর্ষণের অভিযোগে যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা


অপরাধ

প্রকাশিত: ৪:৪১ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৭

দীন মোহাম্মাদ দীনু

বাকেরগঞ্জ প্রতিনিধি

ভালুকায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে হবিরবাড়ি ইউনিয়ন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মনির হোসেনের বিরুদ্ধে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ধর্ষিতা গৃহবধূ আনিকা আক্তার মিতু ভালুকা মডেল থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করেছেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়- নেত্রকোনা জেলার পূর্বধলা উপজেলার শীষকান্দি গ্রামের ওসমান গনির কন্যা হবিরবাড়ি বড়চালা গ্রামের আব্দুস ছত্তারের স্ত্রী আনিকা আক্তার মিতু (২০) তার স্বামীকে নিয়ে ওই গ্রামের ঢালীবাড়ী মোড় এলাকায় জনৈক মস্তুর বাসায় ভাড়া থেকে দর্জির কাজ করতো। পূর্ব পরিচয় ও আত্মীয়তার সুবাদে উপজেলার বারশ্রী গ্রামের আবুল হোসেনের পুত্র হবিরবাড়ি ইউনিয়ন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মনির হোসেন ওই গৃহবধূর ট্রাক ড্রাইভার স্বামীর অনুপস্থিতিতে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে নানা ভাবে তাকে উত্ত্যক্ত করত।

মামলার এজাহারে গৃহবধূ মিতু বলেন গত ২৬শে এপ্রিল সন্ধ্যায় প্রতারণা করে মনির হোসেন হবিরবাড়ি তার তেলের দোকানে এনে পেপসি খাইয়ে অজ্ঞান করে দোকানের পিছনে একটি বাসায় নিয়ে রাতে আমাকে ধর্ষণ করে। পরে মনির হোসেন তার বসত ঘরে আমাকে আটক করে রাখে এবং বিভিন্ন সময় ধর্ষণ করে। ধর্ষণের ফলে আমি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে যাই। অন্তঃসত্ত্বার বিষয়টি টের পেয়ে মনির সন্তান নষ্ট করার জন্য আমাকে চাপ দেয়। টাকা পয়সা নিয়ে বিষয়টি মীমাংসা করার কথা বললে আমি গত ২১শে জুন পালিয়ে আমার পিত্রালয়ে চলে যাই। আমি এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চাই। এ ঘটনায় ওই ধর্ষিতা গৃহবধূ মনির হোসনেকে একমাত্র আসামি করে গত ৬ই সেপ্টেম্বর রাতে ভালুকা মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা করেছেন। মামলার পর হতে ওই গৃহবধূ তার পরিবার নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে।

ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার জন্য একটি প্রভাবশালী মহল চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। ভালুকা মডেল থানার ওসি তদন্ত হযরত আলী জানান মামলার বাদী মোছা. আনিকা আক্তার মিতুকে ডাক্তারী পরীক্ষা করার জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। আসামিকে গ্রেপ্তার করার জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

Top