ঢাকা, ||

বরিশালে পুলিশ কনস্টেবল তার স্ত্রী ও শ্বশুরের বিরুদ্ধে মা


Uncategorized

প্রকাশিত: ৪:৪২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৭

আব্দুল্লাহ আল নোমান

বরগুনা প্রতিনিধি

স্ত্র ঠেকিয়ে চাঁদাবাজি
বরিশালে পুলিশ কনস্টেবল তার স্ত্রী ও শ্বশুরের বিরুদ্ধে মামলা

বরিশালে এক ব্যবসায়ীর কাছে ৪ লাখ টাকা চাঁদা দাবি ও অস্ত্র ঠেকিয়ে মারধর করার ঘটনায় ভোলা জেলা পুলিশের কনস্টেবল মানিকসহ তিন জনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা করা হয়েছে। মামলায় আসামিরা হলেন আলোকান্দা ১৩নং ওয়ার্ডের মৃত খালেক হাওলাদারের ছেলে পুলিশ কনস্টেবল (কং নং ৩৭৪, বর্তমানে ভোলা জেলায় কর্মরত) মানিক হাওলাদার, তার স্ত্রী রুমি বেগম ও শ্বশুর হরিনাফুলিয়া ২৬নং ওয়ার্ডের মৃত হাকিম সরদারের ছেলে আবু সরদার। বুধবার সকালে ব্যবসায়ী নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে মোকাম বিজ্ঞ বরিশাল চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালতে মামলাটি দায়ের করেন।

অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালতের বিচারক অমিত কুমার দেব মামলাটি আমলে নিয়ে বরিশাল পুলিশ ব্যুরো ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) কে তদন্ত করে আদালতে তদন্ত রিপোর্ট জমা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আদালত সূত্রে জানা গেছে, মামলার বাদী নজরুল ইসলাম একজন ব্যবসায়ী ও বরিশাল নগরীর ১০নং ওয়ার্ডের চাঁদমারি এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা। আসামি মানিক হাওলাদার, রুমি বেগম ও তার শ্বশুর আবু সরদার প্রভাবশালী, মামলাবাজ, দাঙ্গা-হাঙ্গামাকারী ও চাঁদাবাজ। আসামিরা দীর্ঘদিন যাবৎ বাদী নজরুল ইসলামের কাছে ৪ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে আসছে। চাঁদার জন্য সব করতে পারে আসামিরা।

চাঁদা না দেয়ায় ক্ষীপ্ত হয় আসামিরা। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২রা সেপ্টেম্বর সকাল ১১টায় বরিশাল মডেল স্কুল এন্ড কলেজের সামনে পথ রোধ করে আসামি পুলিশ কনস্টেবল মানিক হাওলাদার, রুমি বেগম ও আবু সরদারসহ অজ্ঞাতনামা ৪-৫ জন সন্ত্রাসী। এ সময় আসামি মানিক হাওলাদার একটি অস্ত্র ঠেকিয়ে মারধর করে চাঁদা দাবি করে। এ সময় অন্যান্য আসামিরাও বাদীকে মারধর করে। এরপর স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে আসামিরা পালিয়ে যায়। যাবার সময় আসামি পুলিশ কনস্টেবল মানিক দাবিকৃত ৪ লাখ টাকা চাঁদা না দিলে বাদীকে হত্যা করবে বলে হুমকি দেয়। এছাড়া দীর্ঘদিন যাবৎ পুলিশ কনস্টেবল মানিক হাওলাদার ও তার শ্বশুর মামলাবাজ হওয়ায় বাদীর বিরুদ্ধে ২টি মামলা দিয়ে হয়রানি করেছে। এরপরও ভবিষ্যতে আবারো মামলা দিয়ে হয়রানি করিতে পারে বলে বাদীর আশঙ্কা রয়েছে।

এছাড়া আসামি মানিক হাওলাদার ও আবু সরদারের বিরুদ্ধে বরিশালের বিভিন্নস্থানে একাধিক মামলা রয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ মানিকের হয়রানির হাত থেকে রক্ষা পেতে অবশেষে বুধবার সকালে মামলা দায়ের করেন বাদী নজরুল ইসলাম। অতিরিক্তি চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালতের বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

Top