ঢাকা, ||

নোয়াখালীতে কারা হচ্ছেন নৌকা-ধানের মালিক


নির্বাচন

প্রকাশিত: ১১:০৭ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৩, ২০১৭

দীন মোহাম্মাদ দীনু

বাকেরগঞ্জ প্রতিনিধি

জিএম নিউজ বিডি ডট কম: বিভিন্ন আয়োজনের মধ্য দিয়ে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের হাওয়া বইছে উপকূলীয় জেলা নোয়াখালীতে। একাধিক আসনে প্রধান দুই দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপিতে হ্যাভিওয়েট প্রার্থীসহ উঠতি নেতাদের নিয়ে চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা।

জেলার ছয়টি সংসদীয় আসনে দলীয় মনোনয়নের প্রত্যাশায় এরই মধ্যে তারা দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন। বিভিন্ন উন্নয়ন ও সামাজিক কাজে সক্রিয় অংশ গ্রহণের মাধ্যমে জানান দিচ্ছে তাদের উপস্থিতি।

ঈদ উৎসব ও জাতীয় শোক দিবস সহ বিভিন্ন দিবসকে ঘিরে নানা কৌশলে নির্বাচনী প্রচারণা ও চালাচ্ছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা।

নোয়াখালী ১ (চাটখিল-সোনাইমুড়ি): বর্তমান সংসদ সদস্য জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এইচএম ইব্রাহীম আবারও দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। দলীয় মনোনয়নের আশায় প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারি জাহাঙ্গীর আলম উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের পাশাপাশি নেতাকর্মী ও পেশাজীবীদের সঙ্গে নিয়মিত রক্ষা করে চলছেন সার্বিক যোগাযোগ।

অন্যদিকে বিএনপি থেকে দলের যুগ্ম-মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন। এছাড়া সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাড. সালাউদ্দিন কামরান, সাবেক মন্ত্রী অ্যাড. মাহবুবুর রহমান, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা দিদারুল আলম, জাসদের নুরুন্নবী ও জাতীয় যুবজোটের প্রকৌশলী হারুনুর রশীদ সুমনের নাম আলোচিত।

নোয়াখালী-২ (সেনবাগ-সোনাইমুড়ি): আওয়ামী লীগের বর্তমান সংসদ সদস্য মোরশেদ আলমের পাশাপাশি মনোনয়নের জন্য চেষ্টা করছেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আতাউর রহমান ভূঁইয়া মানিক। একই সাথে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সাধারণ সম্পাদক ড. জামাল উদ্দিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাফর আহম্মদ চৌধুরী।

এদিকে বিএনপি থেকে দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবেদিন ফারুক মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন। এছাড়া সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান কাজি মফিজুর রহমান, জাতীয় পার্টির হাসান মঞ্জুর, জাসদের কেন্দ্রীয় যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক নইমুল আহসান জুয়েলের নাম লোকমুখে উচ্চারিত হচ্ছে।

নোয়াখালী-৩ (বেগমগঞ্জ): আসনটিতে আওয়ামী লীগ থেকে বর্তমান সংসদ সদস্য মামুনুর রশিদ কিরনের পাশাপাশি মনোনয়নের জন্যে কাজ করছেন চৌমুহনী পৌরসভার মেয়র আখতার হোসেন ফয়সল। সাবেক সেনাপ্রধান মইন ইউ আহমেদের ছোট ভাই জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মিনহাজ আহমেদ জাবেদ ও এনায়েত উল্যাহও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন মনোনয়ন পাওয়ার জন্য।

বড় দল বিএনপি থেকে কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি বরকত উল্যাহ বুলু মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে আছেন। এছাড়া সোস্যাল ইসলামী ব্যাংকের চেয়ারম্যান ডা. মেজর (অব.) রেজাউল হক ও ড্যাব নেতা ডা. মাজহারুল ইসলাম দোলনের নাম শোনা যাচ্ছে।

নোয়াখালী-৪ (সদর-সুবর্ণচর): বর্তমান সংসদ সদস্য জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল করিম চৌধুরী ২০০৮ ইং সালের নির্বাচনে কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-সভাপতি শাহজাহানকে পরাজিত করে আসনটি ধরে রেখেছেন। এবারও তার মনোনয়ন পাওয়া অনেকটাই নিশ্চিত বলে মনে করছেন স্থানীয়রা।

অন্যদিকে বিএনপি থেকে এই আসনে পরপর চারবারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য শাহ জাহানের মনোনয়ন পাওয়া প্রায় নিশ্চিত বলে মনে করছেন স্থানীয় নেতা কর্মীরা।

নোয়াখালী-৫ (কোম্পানীগঞ্জ-কবিরহাট):এই আসনে রয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী দলের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তবে এখনো পর্যন্ত মনোনয়নের জন্য অন্য কারো নাম তেমন আলোচনায় আসেনি।

বিপরীত পক্ষে বিএনপির প্রার্থী দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ। জাসদের অ্যাড. আজিজুল হক বকশি ও সেলিম উল্যার নাম শোনা যাচ্ছে।

নোয়াখালী-৬ (হাতিয়া): রাজনৈতিক দিক থেকে জেলার সবচেয়ে সংঘাতময় এলাকা দ্বীপ উপজেলা হাতিয়া। আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরীণ বিরোধের জেরে গেল এক বছরে এখানে ছয়জনের প্রাণ হানির ঘটনা ঘটেছে। এই আসনে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা মোস্তফা আলী দুলালের ছোট ভাই মাহমুদ আলী রাতুলের পক্ষে ব্যাপক গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছে নেতা-কর্মীরা।

অন্যদিকে বর্তমান সাংসদ আয়েশা ফেরদৌস এবারও মনোনয়ন পাওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। বিএনপি থেকে সাবেক ছাত্রনেতা কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদের হালিমীর নাম মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে এগিয়ে রয়েছেন।-ভিন্ন বার্তা

Top